• ঢাকা
  • সোমবার, ২১শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৬ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২১শে সফর, ১৪৪১ হিজরী

সকাল ৯:৩৪

হাসতে নেই মানা


* জোকস-১

মর্নিং ওয়াক শেষে চায়ের টং দোকানে আড্ডা দিচ্ছেন কয়েকজন ডাক্তার। কথাবার্তার ফাঁকে লক্ষ্য করলেন এক ভদ্রলোক খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হেঁটে আসছেন তাদের দিকে…!

একজন ডাক্তার আরেক ডাক্তারকে জিজ্ঞেস করলেন, কি হয়েছে লোকটার বলতো?

অন্যজনের তৎক্ষনাত মন্তব্যঃ Left knee arthritis.

দ্বিতীয়জন বলে উঠলেনঃ না, না, আমার মনে হয় Plantar Fasciitis.

তৃতীয়জন বললেনঃ আরে না রে ভাই It is a clear case of Ankle sprain.

চতুর্থ জন ভালো করে দেখে বললেনঃ লোকটা একটা পা ঠিক ভাবে উঠতে পারছে না, এটা Foot drop কেস.. তার Lower motor neurons ঠিক মতো কাজ করছে না!

পঞ্চম জনের বক্তব্যঃ আমার তো এটা Hemiplegia র scissors gate মনে হচ্ছে…

ষষ্ঠ জন কিছু বলার আগেই ভদ্রলোক রাস্তা পার হয়ে তাদের কাছে এসে পড়েছেন,তাদেরকে বললেন, ভাই এখানে আসে পাশে কোনো মুচির দোকান আছে কি? আমার স্যান্ডেলের বুড়ো আঙ্গুলের ফিতাটা ছিঁড়ে গিয়ে আমাকে বেশ বেকায়দায় ফেলেছে…।

* জোকস-২

পরীক্ষার হলে এক মেয়ে এক ছেলেকে বললঃ

এক্সকিউজ মি ভাইজান, আমাকে একটু হেল্প করবেন?

ছেলেঃ এমনিতেই কিছু পারতেছিনা তার মধ্যে আবার তুমি কনফিউশন সৃষ্টি করো…হয় ভাই বল নয়ত জান বল, দুইটা একসাথে বলার কি দরকার…?

* জোকস-৩

এক ভিক্ষুক গেছে ভিক্ষা করতে –

ভিক্ষুকঃ আপা, ত্রিশটা টাকা দেন।

গৃহকর্ত্রীঃ টাকা কি গাছে ধরে?

ভিক্ষুকঃ কেন আপা, সমস্যা কী?

গৃহকর্ত্রীঃ আমার স্বামী এখন বাড়িতে নেই।

ভিক্ষুকঃ আপা, কালকে ফেসবুকে আমাদের ভিক্ষুক সমিতির পেজ থেইকা স্ট্যাটাস দিয়া জানাইছিলাম, আইজ আমরা মিরপুরে ভিক্ষা করবো। আপনার স্বামী টাকা রাইখা যায় নাই কেন?

গৃহকর্ত্রীঃ উনি মনে হয় স্ট্যাটাস খেয়াল করেননি।ভিক্ষুকঃ ঠিক আছে, মোবাইল নম্বর রাইখা যাইতেছি, ভিক্ষাটা bKash কইরা দিয়েন…!