• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৭শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৪ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

সকাল ৯:২১

হজযাত্রীদের ইমিগ্রেশন আশকোনা হজ ক্যাম্পে


নতুন কাগজ ডেস্ক: ২০২০ সালে ‘মক্কা রুট ইনিসিয়েটিভ’র আওতায় বাংলাদেশের সব হজযাত্রীর ইমিগ্রেশন আশকোনা হজ ক্যাম্পে করা হবে। এ লক্ষ্যে আশকোনা হজ ক্যাম্প সম্প্রসারণ ও সংস্কার কার্যক্রম শুরুর নির্দেশ দিয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ।
রবিবার (২৭ অক্টোবর) বেলা ১১টায় হজ ক্যাম্প সম্প্রসারণ ও সংস্কার কার্যক্রম-সংক্রান্ত সভায় সংশ্লিষ্টদের তিনি এ নির্দেশ দেন।
শেখ মো. আব্দুল্লাহ। বলেন, দেশের মানুষের অর্থনৈতিক সক্ষমতা বৃদ্ধির ফলে ২০০৯ সাল থেকে বাংলাদেশি হজযাত্রীর সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০০৯ সালে যেখানে বাংলাদেশি হজযাত্রীর সংখ্যা ছিল ৫৮ হাজার ৬২৮, সেখানে ২০১৯ সালে হজযাত্রীর সংখ্যা এক লাখ ২৬ হাজার ৯২৩ জনে বৃদ্ধি পেয়েছে। এ বছর রাজকীয় সৌদি সরকারের ‘মক্কা রুট ইনিসিয়েটিভ’ কর্মসূচির অধীনে প্রায় অর্ধেক হজযাত্রীর সৌদি আরব অংশের ইমিগ্রেশন জেদ্দার পরিবর্তে ঢাকায় সম্পন্ন হয়েছে। তবে ২০২০ সালে সব হজযাত্রীকে এ কর্মসূচির অধীনে আনা হবে।
তিনি বলেন, ভবিষ্যতে হজযাত্রীর সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে এ সংক্রান্ত কার্যক্রমও বৃদ্ধি পাবে। এখন থেকে হজ ক্যাম্প সম্প্রসারণ ও সংস্কার-সংক্রান্ত কার্যক্রম গ্রহণ করা প্রয়োজন।
২০১৯ সালে মোট ৩৬৬টি হজ ফ্লাইট পরিচালিত হয়। সৌদি এয়ারলাইন্সের মাধ্যমে পরিচালিত হজযাত্রীদের মধ্যে যারা মক্কা রুট ইনিসিয়েটিভ কর্মসূচির অধীনে হজ করেছেন তাদের লাগেজ ট্যাগ গ্রহণ ও ইমগ্রেশন নিয়ে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়েছে। ২০২০ সালের সব হজযাত্রীদের বাংলাদেশ অংশের ইমিগ্রেশন হজ ক্যাম্পে করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।
সভায় ধর্ম সচিব মো. আনিছুর রহমান, হজ অফিস, ঢাকা, সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ, পাসপোর্ট ও ইমিগ্রেশন অধিদফতর, গণপূর্ত অধিদফতর, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

নতুন কাগজ/আরকে