• ঢাকা
  • সোমবার, ১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ১লা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৫ই মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী

রাত ২:৫৬

স্বামীকে খালে ভাসিয়ে দিলেন স্ত্রী


নতুন কাগজ ডেস্ক: আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলায় স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করেছেন স্ত্রী ও তার পরকীয়া প্রেমিক। নিহত ব্যক্তির নাম কাউছার (৪০)। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।
বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গ্রেফতারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়। পরে তাদের কারাগারে পাঠান আদালত। নিহত কাউছার ছয়গাঁও গ্রামের জামেদ আলী দপ্তরির ছেলে। গ্রেফতারকৃত মাসুদ ব্যাপারী একই এলাকার এলেন ব্যাপারীর ছেলে।
বরিশালের হিজলা উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নের চর ছয়গাঁও গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। স্বামীকে হত্যার ঘটনায় স্ত্রী সাজেদা বেগম (৩৫) ও তার পরকীয়া প্রেমিক মাসুদ ব্যাপারীকে (২৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রায় চার বছর ধরে পাঁচ সন্তানের জননী সাজেদা বেগমের সঙ্গে মাসুদের পরকীয়া চলছে। তাদের অনৈতিক সম্পর্কের বিষয়টি নিয়ে গ্রামে একাধিকবার সালিশ হয়। সালিশে প্রতিবারই মুচলেকা দিয়ে অনৈতিক সম্পর্ক রাখবে না বলে জানান তারা।
কিন্তু পরে গোপনে বিভিন্ন স্থানে দেখা ও মেলামেশা করতেন তারা। তিন মাস আগে সাজেদা বেগমের সঙ্গে মাসুদকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন স্থানীয়রা। তখন মাসুদ পালিয়ে যান। এ নিয়ে স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া হয় সাজেদার।
সর্বশেষ সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) রাতে স্ত্রী সাজেদাকে মাসুদের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন স্বামী কাউছার। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়। একপর্যায়ে হাতাহাতি হয়। এ সময় কাউছারকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেন সাজেদা ও মাসুদ। পরে বাড়ির পাশের খালে কাউছারের মরদেহ ভাসিয়ে দেন তারা।
৩ সেপ্টেম্বর বিকালে খালে কাউছারের মরদেহ ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। ওই দিন রাতেই স্ত্রী সাজেদা বেগম ও পরকীয়া প্রেমিক মাসুদকে গ্রেফতার করা হয়।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে হিজলা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অসীম কুমার শিকদার বলেন, অনৈতিককাজে লিপ্ত অবস্থায় দেখে ফেলায় স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে স্ত্রী ও তার পরকীয়া প্রেমিক। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে সাইদুল বাদী হয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। পরে অভিযান চালিয়ে সাজেদা বেগম ও পরকীয়া প্রেমিক মাসুদকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের আদালতে পাঠালে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।

নতুন কাগজ/আরকে