• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২২শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৪শে রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

সকাল ৮:২২

সুনির্দিষ্ট অভিযোগ দিতে বললেন শিক্ষা উপমন্ত্রী


নতুন কাগজ ডেস্ক: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ইস্যুতে আন্দোলনকারীদের সুনির্দিষ্ট অভিযোগ দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।
বুধবার (০৬ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীতে মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এই ব্রিফিং অনুষ্ঠিত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ আহ্বান জানান।
নওফেল বলেন, কেউ অভিযোগ করলে তাৎক্ষনিক তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। তবে যে কোনো দাবিতেই দায়িত্বশীল ব্যক্তির বাড়ি ঘেরাও অমানবিক ও অনৈতিক।
বুধবার (৬ নভেম্বর) আবারো জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। হল সংলগ্ন খাবার দোকানগুলো বন্ধ রাখারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিকাল সাড়ে ৩টার মধ্যে হল ত্যাগ করতে বলা হলেও তা মানেননি অনেক শিক্ষার্থী। বরং পদত্যাগের দাবিতে ফের জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাসভবন অবরুদ্ধ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা।
আবারো জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) হল ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।
বিকেল সাড়ে ৩টা মধ্যে হলত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নির্দেশ দেয়ার পরও হল ছাড়েননি অনেক শিক্ষার্থীরা। তবে বেশ কিছু শিক্ষার্থী হল ছেড়ে গেছেন। হল ছাড়ার নির্দেশ আসার পর উপাচার্যের পদত্যাগের বিষয়টি আরো জোরালো হয়। সাধারণ শিক্ষার্থীরাও আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন।
সকাল ৯টার দিকে অবরোধের অংশ হিসেবে জাবির রেজিস্ট্রার অফিস থেকে সব কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সরিয়ে দেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।
দুর্নীতির অভিযোগে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সব কার্যক্রম আনুষ্ঠানিক বন্ধ ঘোষণা করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে ওইদিন বিকেল ৫টার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে থাকা সব শিক্ষার্থীর হলত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়।
ওই নির্দেশ অমান্য করে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণ ও আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে বেগম সুফিয়া কামাল হল ও প্রীতিলতা হলের তালা ভেঙে বিক্ষোভ মিছিল করেন শিক্ষার্থীরা।
দীর্ঘ আন্দোলনে মধ্যে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়। আন্দোলনকারীরা জানান, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

নতুন কাগজ/আরকে