• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৪ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৯শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৫ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

রাত ৪:৫৯

সাত সপ্তাহ পর বাড়লো ডিএসইর বাজার মূলধন


নিজস্ব প্রতিবেদক : টানা সাত সপ্তাহ কমার পর গত সপ্তাহে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন প্রায় এক হাজার কোটি টাকা বেড়েছে। বাজার মূলধনের পাশাপাশি বাজারটির প্রধান মূল্যসূচক ও লেনদেনের পরিমাণও বেড়েছে। তবে সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তিন কার্যদিবসই দরপতন হয়েছে।

গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৮৫ হাজার ৮৬২ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৩ লাখ ৮৪ হাজার ৮৭৮ কোটি টাকা। অর্থাৎ এক সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে ৯৮৪ কোটি টাকা।

বাজার মূলধন বাড়ার পাশাপাশি গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৫০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে ১৭১টির দাম আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে। অপরদিকে দাম কমেছে ১৪৩টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৭টির দাম।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ায় সপ্তাহজুড়ে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ১৯ দশমিক ৮১ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৮ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি কমেছিল ৪৫ দশমিক শূন্য ৫ পয়েন্ট বা দশমিক ৮৫ শতাংশ।

অপর দুটি মূল্যসূচকের মধ্যে গত সপ্তাহে ডিএসই-৩০ আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে ১৪ দশমিক ৬১ পয়েন্ট বা দশমিক ৮০ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি কমেছিল ৩৩ দশমিক ১৪ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৭৯ শতাংশ।

এদিকে ডিএসইএক্স ও ডিএসই-৩০ এই সূচক বাড়লেও ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক গত সপ্তাহেও কমেছে ৪ দশমিক ৬৬ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৯ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি কমেছিল ২২ দশমিক ৭৪ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

এদিকে বিগত সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৩৫৮ কোটি ৬০ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ২৯২ কোটি ৩০ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন বেড়েছে ৬৬ কোটি ৩০ লাখ টাকা বা ২২ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

আর গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৭৯৩ কোটি ২ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ১ হাজার ৪৬১ কোটি ৫১ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন বেড়েছে ৩৩১ কোটি ৫১ লাখ টাকা বা ২২ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

গত সপ্তাহে মোট লেনদেনের ৮৭ দশমিক ৫১ শতাংশই ছিল এ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ারের দখলে। এছাড়া বাকি শেয়ারের ৭ দশমিক ৪৬ শতাংশ ‘বি’ ক্যাটাগরিভুক্ত, ২ দশমিক ৬৫ শতাংশ ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত এবং ২ দশমিক ৩৯ শতাংশ ‘জেড’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে টাকার অংকে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে ব্র্যাক ব্যাংকের শেয়ার। এ সময় কোম্পানিটির মোট ৭৯ কোটি ৮৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা সপ্তাহজুড়ে হওয়া মোট লেনদেনের ৪ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা ফরচুন সুজের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৭১ কোটি ৪৪ লাখ টাকার, যা সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৩ দশমিক ৯৮ শতাংশ। আর ৫৬ কোটি ৬৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে এসকে ট্রিমস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিডেট।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি, আইএসআইসি ব্যাংক, ইষ্টার্ণ কেবলস, মুন্নু সিরামিক, ডরিন পাওয়ার জেনারেশন, পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি এবং প্রাইম ফাইন্যান্স।