• ঢাকা
  • বুধবার, ২৩শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৮ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৩শে সফর, ১৪৪১ হিজরী

দুপুর ১:১৭

সরিষাবাড়ীতে ছেলে ধরা সন্দেহে যুবককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ


সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি: জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ছেলে ধরা সন্দেহে রুবেল মিয়া (৩২) নামে এক যুবককে গাছের সাথে বেধে গণ ধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ করেছে জনতা। ঘটনাটি রোববার দুপুরে উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের কান্দারপাড়া বাজার জামে মসজিদ এলাকায় ঘটে।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা, গেছে-সরিষাবাড়ী উপজেলার তারকান্দি যমুনা সারকারখানা এলাকায় ভবঘুরে রুবেল মিয়া (৩২)নামে এক ব্যাক্তি সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সন্দেহজনক ভাবে ঘোরা ফেরা করতে থাকে। দুপুর ২ টার দিকে কান্দার পাড়া বাজার জামে মসজিদ এলাকার চা দোকানদার গোলাপ আলী’র চায়ের দোকানে রুবেল চা পান শেষে মসজিদে নামাজ পড়তে যাওয়ার সময় স্থানীয় লোকজন তাকে ছেলে ধরা সন্দেহে গাছের সাথে বেধে গণ ধোলাই দেয়। পরে মসজিদ কমিটির সাধারন সম্পাদক মতিয়ার রহমান, ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান, ইসাহাক আলী, ইমাম শরীফ উদ্দিনসহ কতিপয় লোকজন তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে খবর দেন।

খবর পেয়ে তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে এসআই ইউনুস আলী তাকে উদ্ধার করেন। পরে তাকে জেএফসিএল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে আসেন। পুলিশ তার দেহ তল্লাশী করে তার নিকট টুপি,আতর, পান, জর্দ্দা ও কয়েকটি ঘুমের বড়ি পাওয়া যায় বলে উদ্ধারকারী এসআই ইউনুছ আলী নিশ্চিত করেন।

আটককৃত যুবক টাঙ্গাইল জেলা ভ’য়াপুর উপজেলার গোবিন্দাসী ইউনিয়নের কষ্টাপাড়া গ্রামের মৃত গফুর মিয়ার ছেলে রুবেল মিয়া। রুবেল মিয়ার মাদক সেবন, চুরি ,হিন্দু সেজে ভিক্ষা করা ও প্রতারনা করাই একমাত্র কাজ। সে পরিবার পরিজনের নিকট হতে বিতাডিত। এ বিষয়টি গোবিন্দাসী ইউনিয়নের স্থানীয় ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল কাদের ও ৩ নং ওয়ার্ড়ের ইউপি সদস্য সোহরাব আলী ও রুবেলের বড় ভাই নুরুজ্জামান মিয়া বাবলু মাষ্টারের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ মাজেদুর রহমান জানান,এ বিষয়ে কোন মামলা হয়নি। আটককৃতের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থার নেয়ার প্রস্তুতি চলছে।