• ঢাকা
  • সোমবার, ১৪ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৪ই সফর, ১৪৪১ হিজরী

রাত ১১:৪৬

তাহিরপুরে সরকারকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দুটি অবৈধ গরুর হাট


সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় সরকারী নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করে ও সরকারের রাজস্ব ফাকিঁ দিয়ে দুটি অবৈধ গরুর হাট বসিয়েছে প্রভাবশালী মহল। তারা আর্থিকভাবে লাভবান হলেও সরকারের রাজস্ব বঞ্চিত ও ক্ষতিগ্রস্থ হবে উপজেলার বিভিন্ন বাজারের বৈধ ইজারাদারগন। এনিয়ে উপজেলার সচেতন মহল জুড়েই চরম ক্ষোব বিরাজ করছে। সেই সাথে ইজারাদারদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এদিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দিলেও তিনি এ বিষয়টি নিয়ে কোন ব্যবস্থাই নিচ্ছে। যেন দেখার কেউ নেই।

জানাযায়, উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের শান্তিপুর ও জনতা বাজারে সরকারীভাবে কোন প্রকার অনুমতি না নিয়েই স্থানীয় প্রভাবশালী মহল গরুর হাট বসিয়ে। এই দুটি গরুর হাটের পাশেরই সীমান্ত এলাকা হওয়ায় গত ৩১ আগষ্ট থেকে অবৈধভাবে সীমান্তের চোরাই পথে ভারতীয় গরু আসছে। ফলে বাজারও বেশ জমজমাট স্থানীয় ঐলাকাবাসী জানান। আর তাদের ইচ্ছা মত বাজারে গুরুর হাট বসিয়ে সরকারকে বৃদ্ধআগুলি দেখিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে খুব সহজে। আর গরুর হাট বসানোর কারনে অন্যান্য বাজারের ইজারাদারগনের ক্ষতি হওয়ায় তাদের মাঝে চরম ক্ষোব বিরাজ করছে।

এছাড়াও উপজেলার ব্যবসা বানিজ্যের প্রান কেন্দ্র হিসাবে পরিচিত বাদাঘাট বাজারে একটি বড় গুরুর হাট থাকার পরও তারা পাশা পাশি অবৈধ ভাবে আরো দুটি অস্থায়ী বাজার বসায় আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে বাদাঘাট বাজার গরুর হাটটির ইজারাদার। এতে করে আগামীতে বাদাঘাট বাজার ইজারা নিতে চাইবে না কেউই। আর অন্যদিকে বিপুল পরিমান রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার।

বাদাঘাট বাজারের ইজারাদার হুমায়ুন কবির ক্ষোবের সাথে জানান,বাদাঘাট বাজারটি আমরা সরকারী ভাবে সকল নিয়ম মেনে ইজারা আমরা এনেছি। এখন যদি এই বাজারের এক কিলোমিটার দূরে আরো দুটি বাজার বসায় আমি আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হব। আর ক্ষতিগ্রস্থ হলে আগামীতে কেউই লাভের পরির্বতিতে ক্ষতি স্বীকার করে বাজার ইজারা নিবে না। আমি এই বিষয়ে দ্রুত সমাধান চেয়ে লিখিত ভাবে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ করেছি। আমার ক্ষতি না করার জন্য ঐ দুটি অবৈধ বাজারের বিরোদ্ধে কঠোর হস্থক্ষেপ করার জন্য জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে জোড়ালো দাবী জানাই। এই দুটি বাজার গরুর হাট বসানোর সাথে জড়িত সংশ্লিষ্ট কারো বক্তব্য পাওয়া যায় নি।

এই বিষয়ে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসিফ ইমতিয়াজ জানান,এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ জানান,আমরা জানামতে এই দুটি বাজার ইজারা দেওয়া হয় নি। এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবার জন্য বলছি।