ঢাকা শনিবার, ২৫শে মে, ২০১৯ ইং | ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৯শে রমযান, ১৪৪০ হিজরী

বিকাল ৫:৫৯
ফিচার

শূন্য দশকের কিংবদন্তিরা

তরুণ মাসুদ রানার কিডনিতে নানা জটিলতা দেখা দেয় দেড় বছর আগে। পরিবারের যতটা সাধ্য ছিল, তা দিয়ে চিকিৎসা চলে। কিন্তু এতে সুস্থ হননি তিনি। চিকিৎসার টাকার খোঁজে যখন তিনি দিশেহারা তখন এগিয়ে এলেন তাঁর বয়সী কিছু তরুণ। চিকিৎসা আবার শুরু হলো। একা মাসুদ রানা পাশে পেলেন শত মাসুদ রানাকে। এ পর্যন্ত খরচ হয়েছে ৩ লাখের বেশি টাকা। সেই টাকা জোগাচ্ছেন মাসুদ রানার সেই বন্ধুরা। কারা এই বন্ধু?

শুরু ফেসবুক গ্রুপে
গল্পের শুরু সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে। নতুন শতকের শুরুতে ২০০০ সালে যাঁরা এসএসসি আর ২০০২ সালে এইচএসসি পাস করেছেন তাঁরা ফেসবুকে একটি গ্রুপ খোলেন ২০১৭ সালের ১৫ ডিসেম্বর। এখানেই তাঁরা মাসুদ রানার খোঁজ পান। ফেসবুকের সেই গ্রুপে সাহায্যের জন্য পোস্ট দেওয়া হয়। পোস্টটিতে দারুণ সাড়া মেলে। এখন মাসুদ রানার চিকিৎসার খরচ তো চলছেই এমনকি আগামী এক বছরের খরচও জোগাড় হয়েছে। শুরুর গল্পটা এভাবেই বললেন, এই গ্রুপ চালুর উদ্যোক্তা নাজমুল হোসেন। এই গ্রুপের সদস্যসংখ্যা এখন ২১ হাজার।

আমরাই কিংবদন্তি!

২০০০ সালে যাঁরা এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন তাঁরাই গ্রেডিং পদ্ধতির আগের শেষ ব্যাচ। অর্থাৎ তাঁদের ফলাফল হতো প্রথম বা দ্বিতীয় শ্রেণিতে। সেবার ফেল করলেই নতুন সিলেবাসে নতুন ব্যাচের সঙ্গে পরীক্ষা। ফলাফল নতুন গ্রেডিংয়ে। যেন বাঁচা-মরার লড়াই!