• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০শে মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী

বিকাল ৫:৪১

লাউয়াছড়ায় আগরগাছ চুরির তথ্য ফাঁস


কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: গত এপ্রিল মাসে দশ দিনের ব্যবধানে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান থেকে দুটি আগার গাছ কেটে চুরির পর সম্প্রতি আবার বনকর্মীদের আটকে রেখে আগর গাছ চুরির মত ঘটনা ঘটেছিল। এ ঘটনার পর বনকর্মী ও সিপিজি সদস্যদের মাঝে সৃষ্ট বিবাদে ও মারধরের মত ঘটনায় সু-পরিকল্পিতভাবে এ আগার গাছ চুরির তথ্য ফাঁস হয়ে গেছে। বন বিভাগ চারজন সিপিজি (কমিউনিটি পেট্রোলিং গ্রুপ) সদস্যকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে।

কমলগঞ্জের বাঘমারা বন ক্যাম্পের বনকর্মীদের ঘরে আটকে গত বৃহস্পতিবার (১৬ মে) রেখে একটি আগরগাছ কেটে খন্ডাংশ করে নিয়ে গিয়েছিল চোর চক্র। পরদিন শুক্রবার বিভিন্ন গনমাধ্যমে “ এবার বনকর্মীদের আটকে রেখে আগর গাছ চুরি” শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ হয়েছিল।

এ বিষয়ে সংবাদ প্রকাশের পর মৌলভীবাজারের বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও পকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ আগর গাছ চুরির তথ্য উদঘাটনে জোর তৎপরতা শুরু করে। এ সময় ঘটনার রাতে বাঘমারা বন ক্যাম্পে আটক থাকা কর্মী মোক্তার মিয়ার সাথে সিপিজি সদস্য মহসিন মিয়া ও সুফি মিয়ার বিরোধ সৃষ্টি হয়। এ বিরোধের এক পর্যায়ে সুফি মিয়া বনকর্মী মোক্তার মিয়াকে মারধর করে। এ ঘটনার পর বেরিয়ে আসে আগর গাছ চুরির মূল তথ্য। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বনকর্মী জানান, সিপিজি সদস্য সুফি মিয়ার ভাই আলাল মিয়া এ আগর গাছ চুরির সাথে যুক্ত। সিপিজির সদস্য মোক্তার মিয়া ও মহসিন মিয়ার সাথে আগরগাছ চোরদের মুঠোফোনে একাধিকবার কথা হয়েছে। এ কথোপকথনের অডিও রেকর্ড পাওয়া গেছে।

ফাঁস হওয়া তথ্যে জানা যায়, এর আগে ১০ দিনে লাউয়াছড়া বন বিশ্রামাগারের সামন ও রেলপথের ধার থেকে দুটি আগার গাছ চুরি হয়েছিল তার সাথেও অসাধু বনকর্মী ও সিপিজি সদস্যদের একটি অংশ জড়িত ছিল। গত বুধবার (২২ মে) লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় এসব তথ্য প্রকাশ পায়। এ সভায় মুঠোফোনের অডিও রেকর্ড জব্দ করা হয়েছে। সাথে সাথে বনকর্মী মোক্তার মিয়াকে মারধর করায় চার সিপিজি সদস্য মহসিন মিয়া, সুফি মিয়া,সেলিম মিয়া ও জহির মিয়াকে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান সহ ব্যবস্থাপনা কমিটি সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে।

বরখাস্ত হওয়া সিপিজি সদস্য মহসিন মিয়া বলেন, ‘জাতীয় উদ্যানের বেত নিয়ে বনকর্মী মোক্তার মিয়ার সাথে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে সুফি মিয়া মোক্তার মিয়াকে প্রহার করেছিল। এ ঘটনায় তাদের চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।’ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সিপিজি সদস্য বলেন, ‘এ বনের গাছ চুরদের সাথে অনেক বনকর্মীদের সখ্যতা রয়েছে।’

মৌলভীবাজারের বন্যপ্রানী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক মো. আনিসুর রহমান বলেন, ‘বাঘমারা বন ক্যাম্প এলাকা থেকে সম্প্রতি চুরি হওয়া আগর গাছ নিয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বের হয়েছে। এ মুহুর্তে তা প্রকাশ করা যাচ্ছে না। তবে আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় এ বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে। এতে বনকর্মী ও বা সিপিজি সদস্য জড়িত থাকলেও তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’