• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৪শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৯ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৪শে সফর, ১৪৪১ হিজরী

সকাল ৬:০৫

মোদিকে রসগোল্লা পাঠাবেন মমতা


আন্তর্জাতিক ডেস্ক;
ভারতের লোকসভা নির্বাচনে এবার অন্যতম আলোচিত ব্যক্তি মোদি-মমতা। নির্বাচনের মধ্যে মিষ্টি উপহার পাঠানোর কথা প্রকাশ্যে আনায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ওপর বেজায় চটেছেন মমতা। তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর জন্য এমন মিষ্টি পাঠাবেন, যা খেলে দাঁত ভেঙে যাবে।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বদ্যোপাধ্যায় লোকসভা নির্বাচনের শুরু থেকেই কটাক্ষ করে যাচ্ছেন। দুজনের কথাই ‘লড়াই’ মনোযোগ আকর্ষণ করেছে ভারতীয় রাজনীতিতে।

সম্প্রতি বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমারকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাদের সঙ্গে হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্কের কথা তুলে ধরতে গিয়ে মোদি বলেন, মমতা তাকে রসগোল্লা পাঠান, নিজে পছন্দ করে কুর্তাও পাঠান।

কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গের আসানসোলে একটি নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে মোদির এমন মন্তব্য নিয়ে মুখ খোলেন মমতা।

মমতা বলেন, ‘আমি বাংলা থেকে রসগোল্লা পাঠাব। তবে সেই রসগোল্লা হবে মাটির তৈরি। তাতে কাঁকর মেশানো থাকবে। লাড্ডুতে যেমন কাজুবাদাম মেশানো থাকে, ঠিক তেমন। তাতে কামড় দিলেই দাঁত ভেঙে যাবে।’

তবে মোদিকে উপহার পাঠানোর কথা অস্বীকার করেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজনৈতিক সৌজন্যবোধ থেকে মোদিকে এসব উপহার পাঠান বলে যুক্তি দেখান তিনি। প্রসঙ্গত, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা একসময় বিজেপির সঙ্গে জোটেও ছিলেন।

মমতা বলছেন, ‘উপহার দেয়া-নেয়াই বাংলার রীতি। আম হলে আমরা সকলের কাছে পাঠাই। পহেলা বৈশাখে মিষ্টি পাঠাই। কিন্তু তারা সৌজন্য আর রাজনীতির পার্থক্য বোঝেন না। তাই বিষয়টি নিয়ে রাজনীতি করে বেড়াচ্ছেন।’

অক্ষয় কুমারের এক প্রশ্নের জবাবে মোদি বলেছিলেন, ‘আমি জানি না, এই কথাটা বলার জন্য রাজনৈতিকভাবে আমার কোন ক্ষতি হবে কি-না। তবে ঘটনাটি হলো, উপহার হিসেবে প্রতি বছরই মমতা দিদি আমাকে বেশ কয়েকটি পোশাক পাঠান।’

মোদি আরও বলেন, ‘তিনি (মমতা) যখন জানতে পারেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে বিশেষ ধরনের বাঙালি মিষ্টি পাঠান, তারপর থেকে তিনিও আমাকে বছরে একবার কি দুবার বাংলার মিষ্টি পাঠাতে শুরু করেন।’