• ঢাকা
  • সোমবার, ১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ১লা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৫ই মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী

রাত ২:১৯

মানিকছড়ি আ.লীগের কাউন্সিলকে ঘিরে সরগরম


খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি : খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি– বার্ষিক কাউন্সিলকে ঘিরে জমে উঠেছে প্রচার প্রচারণা। আসন্ন কাউন্সিলে দুর্দিনের সেই কান্ডারীদের আবারও শীর্ষপদ-পদবীতে বহাল রাখতে ইতোমধ্যে তৃণমূল থেকে জোর দাবী উঠছে। কাউন্সিলকে ঘিরে উপজেলা সদরে শীর্ষ দুই নেতা সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন ও সাধারণ সম্পাদক মো. মাঈন উদ্দীনকে স্বপদে বহাল রাখতে শতশত ব্যানার, ফেস্টুন ও বিল বোর্ডে সয়লাব করা হয়েছে।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার বিকালে দলের জরুরী বৈঠকে আসন্ন সম্মেলকে ঘিরে প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়েছে। খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি–বার্ষিক কাউন্সিল আগামী (৬ই সেপ্টেম্বর) অনুষ্টিত ঘরাবহ কথা রয়েছে। কাউন্সিলের তারিখ ঘোষিত হওয়ার পর থেকে মানিকছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগ,যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের একটাই দাবি হয়ে উঠেছে আবারো কর্মীবান্দব ও সকলের প্রিয় নেতা মোঃ জয়নাল আবেদীনকে সভাপতি করার।

সর্বশেষ ২৯ এপ্রিল ২০১২ তারিখে অনুষ্টিত হয় দলের ৫ম কাউন্সিল। এ কাউন্সিলে শীর্ষপদে (সভাপতি) আসেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ নেতা ও তরুণ শিক্ষিত যুবক মো. জয়নাল আবেদীন। হয়ে(২০১২-২০১৯)দীর্ঘ প্রায় ৭ বছর দল পরিচালনা করেন।
আসন্ন ৬ষষ্ঠ কাউন্সিলে দুর্দিনের এই কান্ডারীকে আবারও শীর্ষপদে বহাল রাখতে ইতোমধ্যে তৃণমূল থেকে জোর দাবী উঠছে। কাউন্সিলকে ঘিরে উপজেলা সদরে শীর্ষ নেতা সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীনকে স্বপদে বহাল রাখতে শতশত ব্যানার,ফেস্টুন ও বিল বোর্ডে সয়লাব করা হয়েছে।

বর্তমান কমিটির শীর্ষ নেতার রাজনৈতিক কর্মকান্ড পর্যালোচনায় দেখা গেছে, মো. জয়নাল আবেদীন ১৯৯০ সালে এসএসসি ও ১৯৯২ সালে এইচএসসি পাশ করে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগে যোগদানের মধ্য দিয়ে রাজনীতিতে পর্দাপণ করেন। পরে তাঁর নিজ জনপদে ইউনিয়ন পরিষদ সৃষ্টি করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়া, যুবলীগের রাজনীতি থেকে সরাসরি আ.লীগের সভাপতি নির্বাচিত এবং বর্তমানে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিতসহ সবই সম্ভব হয়েছে দলে একনিষ্ঠ কর্মকান্ড পরিচালনাসহ নেতা-কর্মীদের মূল্যায়ণে।

তৃণমূলে বর্তমান কমিটির অবস্থান জানতে চাইলে ছাত্রলীগ সভাপতি মো. আলমগীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মো. মোস্তফা কামাল ও সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আসাদুল ইসলাম এক বাক্যে বলেন, বর্তমান কমিটির বিকল্প নেতৃত্ব এখনো মানিকছড়িতে সৃষ্টি হয়নি। ফলে আবারও এ কমিটি পূর্ণবহাল করা উচিত।