• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ৯ই এপ্রিল, ২০২০ ইং | ২৬শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৫ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

সকাল ৬:০৫

ফুলের মেলা


একসঙ্গে এতো জাতের গোলাপ আগে কখনো দেখা হয়নি। আজকের মেলায় এসে দেখতে পেলাম। কোনটা রেখে কোনটি কিনবো সিদ্ধান্ত নিতেই হিমশিম খেতে হচ্ছে।’ কথাগুলো বলছিলেন নগরী ইফফাত তাসরিন।

শুধু ইফফাত তাসরিন নন, তার মতো অনেকে ফাগুন আর ভালবাসা দিবসের দিনে ফুলের মেলায় এসে মন হারিয়েছেন। গোলাপ, চন্দ্রমুখী, ডালিয়া, চন্দ্রমল্লিকা, গাঁদা, জিনিয়া, সূর্যমুখীসহ শতাধিক রকমের দেশি-বিদেশি ফুলের হাট বসেছে রাজশাহী মহানগরীর মণিবাজারে। পাঁচদিনব্যাপী এ পুষ্পমেলা শুরু হয় শুক্রবার। বৈকালী সংঘ এ মেলার আয়োজন করে। মেলার উদ্বোধন করেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার সুজায়েত ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি।  মেলায় আসা ফুলের দোকানিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রায় ৩৬ রকমের গোলাপ ৩০ থেকে ৭০০ টাকা, ৬ রকমের গাঁদা ১০ থেকে ১০০ টাকা, ৪ রকমের সূর্যমুখী ২৫ থেকে ১০০ টাকা, ৪ রকমের জিনিয়া ১৫ থেকে ৩৫ টাকা, ১০ রকমের ডালিয়া ১০০ থেকে ৫০০ টাকা, ৪৮ রকমের চন্দ্রমল্লিকা ৬০ থেকে এক হাজার টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন জাতের ফুল গাছ বিক্রি করা হয় মেলায়। গ্রিণ অ্যাপেক্স স্টলের মাসুম বলেন, ‘অনেক রকমের ফুলের সঙ্গে ফুলপ্রেমীদের মিলন ঘটানো সম্ভব এ মেলার মধ্য দিয়ে। আমরা যারা ফুল গাছের ব্যবসা করি তাদের জন্য এ মেলা অনেক উপকারে আসবে। আলাসিয়াম, ন্যাস্টোসিয়ামসহ আরও কয়েকটি নতুন ফুল এসেছে মেলায়। ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের যত বেশি আগমন ঘটবে মেলা ততই সমৃদ্ধ হবে।’  

আয়োজকদের পক্ষে বৈকালি সংঘের সাধারণ সম্পাদক রইস উদ্দিন জানান, এবারের মেলায় ২৪টি ফুলের স্টল আছে। ফুলপ্রেমীরা যেন হরেক রকমের ফুলের সান্নিধ্য পান এ উদ্দেশ্যে তাদের আয়োজন।