• ঢাকা
  • রবিবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৬ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

রাত ৪:০৮

ফাহমিদা হোসাইন তিশার কবিতা


বেশ্যা

আমি সেই গান ,যার নেই কোনও সুর
আমি সেই ফুল ,যার নেই কোনও সুভাস
আমি সেই তরি,যার নেই কোনও মাঝি
আমি সেই নারি,যার নেই কোনও সম্মান
সমাজের চোখে আমি দুশ্চরিত্রা,কলঙ্কিনী, বেশ্যা ।

অথচ এই আমিই ছিলাম একসময় প্রাণোচ্ছল কিশোরী বালিকা
যে কিনা হাসত কেবলি হাসত ,
যার ছিল হাজারও স্বপ্ন, হাজারও আবেগ,
যার ছিল হাজারও আকুতি তার ভবিষ্যৎ স্বামীর প্রতি।

হায় ভালবেসে যাকে দিয়েছি মোর সমস্ত দায়,
যাকে দিয়েছি মোর রক্ষনের দায়িত্ব ,
সে আজ মোরে করিল ভক্ষন

আমি তো তখনও সাজতাম,এখনও সাজি,
তখন সাজতাম স্বামী তোমাকে মুগ্ধ করার জন্য,
আর এখন সাজি ,
কতকগুলু হিংস্র কুকুরের লালায় নিজেকে গোসল করানোর জন্য
ছিন্ন বিছিন্ন করার জন্য ,
শেষ করে দেয়ার জন্য।

সমাজ তুমি মানুষ কে চলতে শিখাও ,
বাঁচতে শিখাও,
ন্যায় অন্যায়ের তফাত শিখাও
তাহলে এ কেমন তোমার নিতি? এ কেমন তোমার বিচার ?
দোষ আমার একার না, পাপ তো আমি একা করছি না
তাহলে কেন আমি একা হিনম্মতায় ভুগছি?
কেন আমি একা ঘৃণার পাত্রি হচ্ছি?
কেন আমি একা মুখ লুকিয়ে হাঁটছি ?

সমাজ কখনো গভীর রাতে ভয়ার্ত কুকুরের আর্তনাথ শুনেছ ?
ওই যে সেই আর্তনাথ যা ঘুমন্ত মানুষের কর্ণ স্পর্শ করেও ঘুম ভাঙাতে পারে না,
আমি বেশ্যা আজ সেই আর্তনাথ করছি………………
জানি আমিও তোমাদের ঘুম ভাঙাতে পারব না।।