• ঢাকা
  • সোমবার, ২১শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৬ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২১শে সফর, ১৪৪১ হিজরী

সকাল ৯:৩৪

নেত্রকোনায় কওমি মাদরাসার ছাত্রকে বলাৎকার


নতুন কাগজ ডেস্ক: তাবিজ করে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে নেত্রকোনার খালিয়াজুরী ইসলামিয়া কওমি হাফিজিয়া মাদরাসার এক ছাত্রকে বলৎকার করার অভিযোগে ওই মাদরাসার প্রধান শিক্ষক মাওলানা বশীরুল ইসলামকে (৫৭) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
সোমবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিনগত গভীর রাতে মাদরাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় খালিয়াজুরী উপজেলার চাকুয়া ইউনিয়নের এক বাসিন্দা ওই ছাত্রটিকে উদ্ধার করে খালিয়াজুরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। আটক বশীরুল ইসলাম ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার বি-কাঁঠালিয়া গ্রামের মৃত হাফিজ উদ্দিনের ছেলে।
তিনি আট সন্তানের জনক। ছাত্রটির মা জানান, গেল রোববার ভোর চারটার দিকে ছাত্রটিকে তাবিজ দিয়ে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ওই মাদরাসার টয়লেটের পাশে নিয়ে বলৎকার করে প্রধান শিক্ষক বশীরুল ইসলাম। এ সময় একই মাদরাসার সহকারী শিক্ষক মিজানুর রহমান তা দেখে মাদরাসা কমিটিকে জানায়।
পরে কমিটির সভাপতি গোলাম আবু ইছহাক বিষয়টি পুলিশকে জানালে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।
তিনি জানান, বিগত প্রায় এক মাস ধরে ভয় দেখিয়ে ছাত্রটিকে ওই শিক্ষক এ ধরনের কাজ করে আসছে। এসব বিষয় ইতিপূর্বে ছাত্রটি আমাদের পরিবারের সবাইকে জানালেও আমারা আগে তা গুরুত্ব দেইনি।
খালিয়াজুরী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এটিএম মাহমুদুল হক জানান, বশীরুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসায় বলৎকার করার বিষয়টি বশীরুল স্বীকার করেছেন। তার বিরুদ্ধে বলৎকারের অভিযোগে ছাত্রটির মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
ছাত্রটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা হচ্ছে বলে জানান ওসি।

নতুন কাগজ/আরকে