• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৭শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৪ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

সকাল ৯:৩৯

নতুন কাগজ সম্পাদকের মা হারানোর ৯ বছর আজ


মো. শহীদ রানা

‘২০১০ থেকে ২০১৯ অন্য দশজনের চোখে এই সময়টা খুব বেশি লম্বা নয়। অথচ এই ৯টি বছরের একেকটি দিন আমার কাছে পাহাড়সমান মনে হয়েছে। প্রতিটি ঘণ্টা যেন অনন্তকাল। কারণ পৃথিবীতে আমার সবচেয়ে বড় আস্থা, নির্ভরতা সর্বোপরি ভরসার জায়গা আমি নয় বছর আগের এই দিনটিতেই হারিয়ে ফেলেছি। সেই ভরসাস্থল আমার মা।’ মো. সাহেদ যখন কথাগুলো বলছিলেন তখন তার দুই চোখের কোণ চিকচিক করছিল বেদনার অশ্রুবিন্দুতে।

মো. সাহেদ একধারে সাংবাদিক, লেখক, সাহিত্যিক ও শিল্পোদোক্তা। জাতীয় দৈনিক নতুন কাগজের এই প্রকাশক-সম্পাদক একই সঙ্গে দেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্পগ্রুপ রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যানও। তার মা সাফিয়া করিম পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে না-ফেরার দেশে চলে যান ২০১০ সালের ৬ নভেম্বর। আজকের দিনে পূর্ণ হলো তার চিরবিদায়ের নয় বছর।

ঘর-সংসারের পাশাপাশি রাজনৈতিক জীবনেও সাফিয়া করিম ছিলেন অত্যন্ত সফল এক নারী ব্যক্তিত্ব। বাঙ্গালী জাতীয়তাবাদের চেতনার দল মুক্তিযুদ্ধের রূপকার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠন মহিলা আওয়ামী লীগের সাতক্ষীরা জেলার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন তিনি। যার প্রভাব এখনো লক্ষণীয় সাতক্ষীরা শহর থেকে শুরু করে জেলার আনাচ-কানাচ পর্যন্ত। স্বামী সিরাজুল করিমের কাছ থেকেও পেয়েছেন সামাজিক-রাজনৈতিক সংগ্রামী পথচলায় আজীবন ব্যাপক সমর্থন।

চিরবিদায়ের সময় স্বামীর সঙ্গে রেখে গেছেন দুই ছেলেমেয়েকেও। জীবদ্দশায় বুকে আগলে রেখে নিজের আদর্শে বড় করেছেন একমাত্র ছেলে মো. সাহেদকে। মায়ের সঙ্গে হাঁটি হাঁটি পা-পা করে যিনি আজ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপকমিটির একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য।

মায়ের নবম মৃত্যুবার্ষিকীতে তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তির জন্য দোয়া চেয়েছেন মো. সাহেদ। এ উপলক্ষে বিশেষ শোক প্রকাশ করেছে নতুন কাগজ ও রিজেন্ট গ্রুপ পরিবার। আজ বুধবার বাদ আসর রাজধানীর উত্তরায় রিজেন্ট গ্রুপের প্রধান কার্যালয়ে দোয়া ও মিলাদের আয়োজন করা হয়েছে। সেখানে উপস্থিত থাকতে সকল শুভানুধ্যায়ীকে মরহুমার পরিবারের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

ন/ক/র