• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৪ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৯শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৫ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

ভোর ৫:১৮

ধর্ষকদের তাড়িয়ে দিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ করা সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার


ডেস্ক: মনপুরার নির্জন চরপিয়ালে চার ধর্ষককে তাড়িয়ে দিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ করা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা নজরুল ইসলামকে (৩০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নজরুল মনপুরা উপজেলার দক্ষিণ সাকুচিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি।

মনপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাখাওয়াত হোসেন জানান, রবিবার দিবাগত রাতে মনপুরা থেকে একটি স্পিডবোট যোগে হাতিয়ায় পালিয়ে যাওয়ার সময় নজরুলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সাখাওয়াত হোসেন জানান, সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষিতা বাদী হয়ে ছয়জনকে আসামি করে শনিবার রাতেই থানায় মামলা করেছেন। বাকি অভিযুক্তদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

গৃহবধূ ধর্ষণ মামলার আসামিরা হল- মনপুরা উপজেলার দক্ষিণ সাকুচিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম (৩০), মো. বেল্লাল পাটোয়ারী (৩৫), মো. রাশেদ পালোয়ান (২৫), মো. শাহীন খান (২২) ও মো. কিরণ (২৬)।

ভোলার চরফ্যাসন উপজেলার বেতুয়াঘাট থেকে স্পিডবোটে আড়াই বছরের শিশুসন্তানসহ গত শনিবার মনপুরার দক্ষিণ সাকুচিয়ার শ্বশুরবাড়িতে রওনা হন এক গৃহবধূ। পথে চার যাত্রী রাশেদ, শাহীন, কিরণ ও বেলাল স্পিডবোট চালককে মেঘনার দুর্গম চরপিয়ালে নিয়ে যেতে বলে। সেখানে গিয়ে চরে নামিয়ে ওই গৃহবধূকে ধ’র্ষণ করে তারা।

বোটচালক রিয়াজ তাদের সেখানে রেখে মনপুরা এসে ঘটনাটি স্পিডবোটের মালিক ছাত্রলীগ নেতা নজরুল ইসলামকে জানালে তিনি ঘটনাস্থলে যান। সেখানে ধ’র্ষকদের কাছ থেকে তিন হাজার টাকা আদায় করেন তিনি। পরে ওই নারীকে তিনিও ধ’র্ষণ করেন এবং ধ’র্ষণ দৃশ্যের ভিডিও ধারণ করে রাখেন। এরপর চার ধ’র্ষকের কাছ থেকে হাতিয়ে নেওয়া টাকা থেকে ওই নারীকে এক হাজার টাকা দেন তিনি। একই সঙ্গে এ ঘটনা কাউকে বললে ধ’র্ষণের ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।

ঘটনা দেখে মহিষ বাথানিরা স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অলিউল্লাহ কাজলকে জানালে তিনি পুলিশের সহায়তায় শিশুসহ ওই নারীকে উদ্ধার করে মধ্যরাতে থানায় নিয়ে আসেন। পরে ওই গৃহবধূ ছাত্রলীগ নেতা নজরুল, রাশেদ, শাহীন, কিরণ, বেলাল ও বোটচালক রিয়াজের বিরুদ্ধে মামলা করেন। রিয়াজের বিরুদ্ধে ধর্ষণে সহায়তার অভিযোগ আনা হয়েছে। চেয়ারম্যান অলিউল্লাহ কাজল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।