• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২১শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ৭ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৫শে জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

রাত ৯:০০

দূষণ নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করবে বিশ্বব্যাংক


এম এ সালাম শান্ত : বাংলাদেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্রুত উন্নয়ন হলেও প্লাস্টিক-পলিথিন দূষণসহ সার্বিক পরিবেশ দূষণ দেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করছে। এ জন্য পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করতে চায় বলে জানিয়েছেন বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর (বাংলাদেশ-ভুটান) মার্সি টেম্বন।

বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর বলেন, বাংলাদেশ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্রুত উন্নয়ন করছে। কিন্তু প্লাস্টিক, পলিথিন, দূষণসহ সার্বিক পরিবেশ দূষণ বাংলাদেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করছে। এ জন্য পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করতে চায়।

তিনি আরও বলেন, পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ ও বৃক্ষরোপণসহ ইতিবাচক সব বিষয়ে বাংলাদেশের প্রতি বিশ্বব্যাংকের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। এ সকল বিষয়ে নতুন প্রকল্পে বিশ্বব্যাংক অর্থায়নে প্রস্তুত।

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) বিকেলে সচিবালয়ে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর (বাংলাদেশ-ভুটান) মার্সি টেম্বন এ আশ্বাস দেন।

পরিবেশ ও বনমন্ত্রী বলেন, বায়ু ও শব্দ দূষণসহ সকল প্রকার দূষণ রোধ ও অধিক পরিমাণ বৃক্ষরোপণে বর্তমান সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে। এক্ষেত্রে বিশ্বব্যাংকসহ অন্যান্য উন্নয়ন সহযোগীদের সহায়তা পেলে বাংলাদেশে দূষণ নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম আরও জোরদার হবে।

এ সময় তারা বাস্তবায়নাধীন ‘টেকসই বন ও জীবিকা (সুফল)’ প্রকল্পসহ বিভিন্ন নতুন প্রকল্পে বিশ্বব্যাংকের সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা করেন।

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার, সচিব জিয়াউল হাসান, অতিরিক্ত সচিব এস এম মনজুরুল হান্নান ও মাহমুদ হাসান, বন অধিদফতরের প্রধান বন সংরক্ষক শফিউল আলম চৌধুরী, পরিবেশ অধিদদফতরের মহাপরিচালক এ কে এম রফিক আহাম্মদ এবং বিশ্বব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।