• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ২রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৭ই মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী

রাত ৮:১৯

দলের সিদ্ধান্ত ছাড়াই শপথ নিলেন বিএনপির জাহিদুর


ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: দীর্ঘ প্রতিক্ষার পরে ঠাকুরগাঁও ৩ আসনের বিএনপির নির্বাচিত প্রার্থী জাহিদুর রহমান শপথ নিয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় সংসদ ভবনে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী তার কার্যালয়ে শপথ পাঠ করান।

এদিকে, এমপি জাহিদুর শপথ গ্রহন করায় স্থানীয় জেলা বিএনপির নেতারা দ্বিমত পোষন করেছেন। অপরদিকে নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষ তিনি শপথ গ্রহন করায় সাধুবাদ জানিয়েছেন এবং এলাকার উন্নয়নে কাজ করার আহ্বান জানান।

শপথ গ্রহনের বিষয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, শপথ গ্রহন করার আগে জাহিদুর ইসলাম জেলা কমিটিকে কোন লিখিত আবেদন করেন নাই। তিনি নিজ উদ্যেগে শপথ গ্রহন করেছেন।

জাহিদুর রহমানের সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এলাকার সাধারণ মানুষের কথা ভেবেই শপথ গ্রহন করতে বাধ্য হয়েছি। দলের সিদ্ধান্তের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কথাটি এড়িয়ে যান।

উল্লেখ্য, গত ২৯ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিএনপির ভরাডুবির মধ্যেও ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে জয়ী হয়ে চমক সৃষ্টি করেন জাহিদুর রহমান জাহিদ।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এনে ফল বর্জন এবং শপথ না নেওয়ার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বিএনপি, তা এখনো বহাল আছে। দলীয় সেই সিদ্ধান্ত অমান্য করেই সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিলেন জাহিদুর রহমান।

নিয়ম অনুযায়ী, সংসদের প্রথম বৈঠক থেকে পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের শপথ নেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সেই হিসাবে ৩০ এপ্রিলের মধ্যে শপথ নিতে হবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি থেকে বিজয়ী প্রার্থীদের। সুনির্দিষ্ট কারণ দেখিয়ে স্পিকারকে চিঠি না দিলে ৩০ এপ্রিলের পর তাদের আসন শূন্য হয়ে যাবে। পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে এসব শূন্য আসনে অনুষ্ঠিত হবে উপনির্বাচন।

এ পরিস্থিতিতে বিএনপি থেকে নির্বাচিত প্রার্থীরা আশা করছিলেন, নির্ধারিত সময়ের আগে দল সিদ্ধান্ত পাল্টাবে, শপথ বিষয়ে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত আসবে হাইকমান্ড থেকে। ঠাকুরগাঁও থেকে নির্বাচিত জাহিদুর রহমান আর সেই ইঙ্গিতের অপেক্ষা করলেন না।