• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২১শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ৭ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৫শে জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

রাত ৮:৫৭

ঢাকা ওয়াসার এমডিসহ তিন জনকে লিগ্যাল নোটিশ


কামরুল ইসলাম ভূঁইয়া: ঢাকায় পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিষ্কাশন কর্তৃপক্ষ বা ওয়াসার সরবরাহ করা পানি নিয়ে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ রয়েছে গ্রাহকদের।
নিষ্কাশন কর্তৃপক্ষ বা ওয়াসার সরবরাহ করা পানি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই বিভিন্ন অভিযোগ শোনা যায় গ্রাহকদের কাছ থেকে।
‘রাজধানীর ৯১ শতাংশ মানুষ পানি ফুটিয়ে খান’ সম্প্রতি টিআইবির এমন মন্তব্যের পর ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান তা উড়িয়ে দিয়ে বলেন ‘ওয়াসার পানি শতভাগ সুপেয়। তার পর থেকে এই মন্তব্য নিয়ে চলছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা।

ওয়াসার বিভিন্ন প্রকল্পের দুর্নীতি অনিয়মের অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও কি করে দীর্ঘ সময় চাকরিতে বহাল থাকে ।তাই নতুন চুক্তি নবায়ন করে এর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ ও দুর্নীতি দমন কমিশন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও টিআইবির সুপারিশ করা হয়।
ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার তাসকিন খান , পরিচালক উন্নয়ন মোঃ আব্দুল হাশেম ও পরিচালক টেকনিকেল একেএম শহীদুল্লাহকে মানবাধিকার সংস্থা সোসাইটি ফর এনফর্সমেন্ট অফ বেসিক রাইটস (এস আই বি আর ) কর্তৃক লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করা হয়েছে ।
সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবী খলিল মজুমদার রেজিস্টার্ড ডাকযোগে এ লিগ্যাল নোটিশটি পাঠান
পাঠানোর জন্য অনুরোধ করা হল।তবে তাকসিম এ খান দাবি করলেন, ওয়াসা যেখান থেকে পানি সরবরাহ করে (উৎস), সেখানে কোনো সমস্যা নেই। সমস্যা ‘পাইপলাইন’। পাইপলাইনে ফুটো, ভাঙা ও বাড়িতে পানির ট্যাংকে ময়লার কারণে পানি দূষিত হয়।
তাকসিম এ খান বলেন, ‘আমরা বিরাট উদ্যোগ নিয়ে পাইপলাইনগুলো বদলাচ্ছি। ২০২১ সালে আমরা বলব যে আসেন “ট্যাপ ওয়াটার” খান।’ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরও জানান, গত ১১-২৯ নভেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন জায়গা থেকে ২৪৩টি পানির নমুনা সংগ্রহ করে ওয়াসা পরীক্ষা করে সন্তোষজনক ফল পেয়েছে।