• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৭শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৪ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

রাত ৯:৫৯

জেনারেশন নেক্সট পরিচালকদের পাঁচ লাখ টাকা করে জরিমানা


নিজস্ব প্রতিবেদক : আইন লঙ্ঘন করায় পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনসের প্রত্যেক পরিচালককে পাঁচ লাখ টাকা করে জরিমানা করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। তবে প্রতিষ্ঠানটির স্বতন্ত্র পরিচালকদের এই জরিমানার হাত থেকে রেহাই দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিএসইসির চেয়ারম্যান এম খায়রুল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৭০৩তম কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সভা শেষে বিএসইসি নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর এবং ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত বছরের আর্থিক হিসাববিবরণী এবং ইউটিলাইজেশন অব রাইটস ইস্যু প্রোসিডসের বিশেষ নিরীক্ষার জন্য বিশেষ নিরীক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়েছিল।

বিশেষ নিরীক্ষকের রিপোর্ট অনুযায়ী- জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনস লিমিটেড ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর এবং ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত বছরের বার্ষিক হিসাববিবরণী ইন্টারন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিং স্ট্যান্ডার্ড অনুসারে পূর্ণাঙ্গভাবে প্রস্তুত করতে ব্যর্থ হয়েছে। এর মাধ্যমে দ্য সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ রুলস, ১৯৮৭ এর রুল ১২(২) লঙ্ঘন করেছে।

এছাড়া যথাযথভাবে রাইট ইস্যু তহবিল ব্যবহার করতে ব্যর্থ হওয়ার মাধ্যমে রাইটস শেয়ার অফার ডুকমেন্টের প্যারাগ্রাফের ৮(কে) ইমপ্লেমেনটেশন সিডিউল এবং রাইট শেয়ার অফার ডকুমেন্টের কন্ডিশন রিকুয়ারমেন্টস ১৪ ও ১৮ লঙ্ঘন করেছে।

অডিট ফার্ম হিসাবে আতা খান অ্যান্ড কোম্পানি চার্টার্ড অ্যাকাউন্টস দ্বারা ধারাবাহিকভাবে তিন বছরের অধিক নিরীক্ষা করার মাধ্যমে কমিশনের সংশ্লিষ্ট আদেশ লঙ্ঘন করেছে।

হেড অব ইন্টারনাল অডিট এবং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ডিরেক্টরস যথাযথ নিয়মে নিয়োগ না দেয়ার মাধ্যমে কমিশনের কর্পোরেট গভর্নেন্স গাইডলাইনসের শর্ত লঙ্ঘন করেছে।

এসব সিকিউরিটিজ আইন ও বিধিবিধান লঙ্ঘনের জন্য কমিশন জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনস লিমিটেডের প্রত্যেক পরিচালককে (স্বতন্ত্র পরিচালক ব্যতীত) পাঁচ লাখ টাকা করে জরিমানা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এছাড়া অনিয়মের কারণে আতা খান অ্যান্ড কো. চার্টার্ড অ্যাকাউন্টের বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশের (আইসিএবি) কাছে পাঠানো হবে। একই সঙ্গে আতা খান অ্যান্ড কোম্পানিকে কমিশনের অডিটর প্যানেল তেকে বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।