• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৪শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৯ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৩শে সফর, ১৪৪১ হিজরী

ভোর ৫:০৬

জাহাজকর্মীদের উদ্ধারের পরিকল্পনা করছে মার্কিন কোস্টগার্ড


আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের ব্রানসউহক বন্দর থেকে রওনা দেওয়ার পর উল্টে যাওয়া জাহাজের চার কর্মীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে সক্ষম হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কোস্টগার্ড। রবিবার (৮ সেপ্টেম্বর) ভোরে রওনা দেওয়ার পর সমুদ্রে উল্টে যায় গাড়ি পরিবহনকারী জাহাজ গোল্ডেন রে। ওইদিনই জাহাজটি থেকে ২০ জন কর্মীকে উদ্ধার করা হলেও আটকা পড়ে বাকি চারজন। তারা দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিক বলে জানিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তাদের উদ্ধারে তৎপরতা চালানো হচ্ছে বলে এক টুইট বার্তায় জানিয়েছে মার্কিন কোস্টগার্ড।
সামুদ্রিক পরিবহন পর্যবেক্ষণকারী ওয়েবসাইট মেরিন ট্রাফিক ডট কম জানিয়েছে, রবিবার ব্রানসউহক বন্দর থেকে বাল্টিমোরের উদ্দেশে রওনা দেয় গোল্ডেন রে জাহাজটি। ২০১৭ সালে নির্মিত জাহাজটিতে চার হাজারের বেশি গাড়ি ছিল। হুন্দাই গ্লোভিস লজিস্টিকস কোম্পানির মালিকানাধীন জাহাজটি মার্শাল আইল্যান্ডসের পতাকা বহন করে।
মার্কিন কোস্টগার্ড কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, জর্জিয়া উপকূলে উল্টে যাওয়া জাহাজটিতে আগুন, ধোঁয়া এবং জাহাজটি অস্থিতিশীল হয়ে যাওয়ায় এর ২০ কর্মীকে উদ্ধার করে পিছু হটতে বাধ্য হয় তারা। দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, উদ্ধার হওয়া কর্মীদের ছয় জন দক্ষিণ কোরীয়, ১৩ জন ফিলিপাইনের এবং জাহাজটির চালক এক মার্কিন নাগরিক রয়েছে। আটকে পড়া বাকি চারজন দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিক বলেও জানানো হয়েছে।
ঘটনাস্থল থেকে ধারণ করা ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, প্রচণ্ড কাত হয়ে পড়া জাহাজটিতে অবতরণ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের কোস্টগার্ডের হেলিকপ্টার। এরপর উদ্ধারকারীরা জাহাজের মূল কাঠামোতে প্রবেশের উপায় ঠিক করার চেষ্টা করছেন।
গোল্ডেন রে জাহাজটির আধা মাইলের অভ্যন্তরে অন্য কোনও জাহাজকে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। এই এলাকাকে জরুরি নিরাপত্তা এলাকা ঘোষণা করেছে কোস্টগার্ড কর্তৃপক্ষ।
জাহাজটির উল্টে যাওয়ার কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত চলছে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে কোস্টগার্ড কর্তৃপক্ষ। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ট্রান্সপোর্ট সেফটি বোর্ড জানিয়েছে তদন্তে সহায়তা করতে দুই তদন্তকারীকে নিয়োগ দিয়েছে তারা।

নতুন কাগজ/আরকে