• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৪ই রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

রাত ১০:৫৯

চাখারে ছাত্র কর্তৃক শিক্ষিকার অনৈতিক কর্মকান্ডের ভিডিও ভাইরালঃ শিক্ষিকার দৌড়ঝাঁপ শুরু


নিজস্ব প্রতিবেদক [][] চাখারের একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মমতাজ বেগম নামের একজন শিক্ষিকার স্থানীয় আরেক ব্যাক্তির সাথে অনৈতিক কর্মকাণ্ডের ভিডিও রেকর্ড করে ভাইরাল করল একই বিদ্যালয়ের সাবেক স্কুল ছাত্র। ঘটনাস্থলে সরেজমিনে গেলে স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করে প্রতিবেদদকে জানান, ইতিপূর্বেও বেশ কয়েকবার সেনাবাহিনীর চাকুরীচ্যুত স্বপন ও এই শিক্ষিকা মমতাজ হাতেনাতে ধরা পড়েন আপত্তিকর অবস্থায়। গত ১৩ তারিখ পূর্ব সালিয়া বাকপুরে শিক্ষিকার ঘরেই স্বপন ও শিক্ষিকা মমতাজ জড়িত হন অবৈধ দৈহিক মিলনে। এ ঘটনার জানালা থেকে ভিডিও রেকর্ড করে প্রতিবেশী ও বর্তমান বরিশাল সরকারি পলিটেকনিক এক ছাত্র শুভ ও আরও চার পাঁচজন ।অভিযুক্ত শিক্ষিকা মমতাজ চাকুরীরত একই স্কুলের সাবেক ছাত্র ওই শুভ ।
শুভ সাংবাদিকদের বলে “ভিডিও ধারন শেষে মমতাজ আপা ও লম্পট স্বপন আমাকে ও আরও তিন চারজন শিক্ষার্থীদের ভিডিও কেড়ে নিতে বেদম মারধর করেন। আমরা পরে ভিডিওটি ডিলেট করেছিলাম। কিভাবে ভাইরাল হল জানিনা “
এ ঘটনা জানাজানি হলে স্কুলের ভাবমূর্তি রক্ষার্থে স্কুল কমিটির সভাপতি সৈয়দ জাহাঙ্গীর হোসেনকে দেশের বাইরে থাকায় ফোনে অবহিত করেন এবং কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উক্ত শিক্ষিকাকে লিখিত নোটিশ দেন বলে জানিয়েছেন চাখার ফজলুল হক ইনস্টিটিউশনের প্রধান শিক্ষক মো. জিয়াউর রহমান। তিনি আরও বলেন উপযুক্ত প্রমাণ পেলে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নিতে পারে কতৃপক্ষ।
এ বিষয় কথা বলতে চাইলে মমতাজ বেগম আত্মগোপনে থাকায় কথা বলা সম্ভব হয়নি। তার ব্যাবহৃত মোবাইল নম্বরটিও বন্ধ করে রাখেন তিনি।
অভিযুক্ত শিক্ষিকা মমতাজের স্বামী মোবাইলে সাংবাদিকদের বলেন ” খবরটি শুনেছি। ঘটনাটি তদন্ত দরকার। আর সত্যি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এরকম একটা আচঁ পেয়ে স্বপনকে আমি বারণ করলেও তিনি শোনেন নি। ঘটনা সত্যি হলে আমি বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেব”

অভিযুক্ত স্বপনকে জানতে গেলে তিনি ঢাকা চলে গেছেন বলে জানায় তার স্ত্রী এবং বোন। তবে “মমতাজ ও স্বপনের কেলেঙ্কারির ঘটনা নতুন নয় ” বলে জানান স্বপনের বোন।
ভিডিওটি ভাইরাল হলে স্থানীয় শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও সচেতন অভিভাবকবৃন্দ এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ঘৃণা প্রকাশ করেন।

এ রিপোর্ট করা পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট থানায় কোন জিডি,মামলা হয়নি বলে জানা গেছে।