• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ৯ই এপ্রিল, ২০২০ ইং | ২৬শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৫ই শাবান, ১৪৪১ হিজরী

সকাল ৭:০৬

গ্যাসের আগুনে স্বামী-স্ত্রীসহ দগ্ধ ৩


নতুন কাগজ ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে একটি ফ্ল্যাট বাসায় চুলা থেকে জমা থাকা গ্যাসের আগুনে স্বামী-স্ত্রীসহ একই পরিবারের ৩ জন দগ্ধ হয়েছেন। দগ্ধদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (০২ জানুয়ারি) ভোর সাড়ে পাঁচটায় সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পাইনাদী সিআইখোলার ৬ তলা ইটালী ভবনের দ্বিতীয় তলার ফ্ল্যাটে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দগ্ধরা হলেন- কবির হোসেন (৬৫), তার স্ত্রী রেখা বেগম (৫৫) ও মেয়ে সুফিয়া (২৮)।
ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় লোকজন জানান, পাইনাদী সিআইখোলা এলাকায় সুফিয়া বেগমের ইটালি ভবনের দ্বিতীয় তলার একটি ফ্ল্যাট বাসায় কবির হোসেন তার পরিবার নিয়ে বসবাস করেন। রাতে ওই ফ্ল্যাট বাসার রান্নাঘরের চুলা বন্ধ না করেই ঘুমিয়ে পড়েন তারা।
এতে রান্নাঘরে গ্যাস ছড়িয়ে পড়ে। ভোরে রান্নার জন্য চুলায় আগুন দিলে সাথে সাথেই দগ্ধ হন গৃহকর্তা কবির হোসেন, তার স্ত্রী রেখা বেগম ও মেয়ে সুফিয়া। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করে।
আদমজী ইপিজেড ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. শাহজাহান জানান, ধারণা করা হচ্ছে গ্যাসের চুলা বন্ধ না করেই পরিবারের লোকজন ঘুমিয়ে পড়েছিল। এতে রাতভর দরজা-জানালা বন্ধ থাকায় বাসায় ভেতরে গ্যাস জমে যায়। ভোরে কেউ চুলা জ্বালাতে গেলে আগুন ধরে ওই পরিবারের তিনজন দগ্ধ হয়েছেন।
তিনি জানান, ফায়ার সার্ভিসের দমকল বাহিনীর কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগেই স্থানীয়রা আগুন নিভিয়ে ফেলে।
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আবদুল খান জানান, দগ্ধদের মধ্যে কবির হোসেনের শরীর ৫৫ ভাগ, স্ত্রী রেখা বেগমের ২০ ভাগ ও মেয়ে সুফিয়ার ৫ ভাগ পুড়ে গেছে। গৃহকর্তার কবির হোসেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কামরুল ফারুক জানান, সকালে আগুনের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। দগ্ধ তিনজনের মধ্যে একজনের অবস্থা আশংকাজনক । অপর দুইজন আশংকামুক্ত। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে তাদের তিনজনকেই চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

নতুন কাগজ/আরকে