• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৫ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ৩০শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৭ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

বিকাল ৪:০৬

কমেছে ডিএসইর মূল্য আয় অনুপাত


নতুন কাগজ ডেস্ক: সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তিন কার্যদিবস শেয়ারবাজারে মূল্য সূচকের পতন হয়েছে। সেই সঙ্গে দাম কমেছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের। ফলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সার্বিক মূল্য আয় অনুপাত (পিই রেশিও) কমেছে।
বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, গত সপ্তাহের তিন কার্যদিবসে [শেয়ারবাজারে পতন হওয়ায়] ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্সসহ বাকি দুটি সূচকেরও বড় পতন হয়েছে। সূচকের এ পতনের মধ্যে বাজারে লেনদেনে অংশ নেয়া ৬৭ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। এতে ডিএসইর সার্বিক মূল্য আয় অনুপাতও কমেছে।
গত সপ্তাহের শুরুতে ডিএসইর পিই ছিল ১৩ দশমিক শূন্য ৪ পয়েন্টে। যা সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষেও দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক শূন্য ২ পয়েন্টে। অর্থাৎ এক সপ্তাহে ডিএসইর সার্বিক মূল্য আয় অনুপাত কমেছে দশমিক শূন্য ২ পয়েন্ট বা দশমিক ১৫ শতাংশ।
খাত ভিত্তিক তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, বরাবরের মতো সব থেকে কম পিই রেশিও রয়েছে ব্যাংক খাতের। সপ্তাহ শেষে ব্যাংক খাতের পিই রেশিও অবস্থান করছে ৭ দশমিক ৬৯ পয়েন্টে, যা আগের সপ্তাহে ছিল ৭ দশমিক ৩৪ পয়েন্টে। অর্থাৎ পতনের মধ্যেও ব্যাংক খাতের পিই রেশিও কিছুটা বেড়েছে।
দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের পিই ১২ দশমিক ১৪ পয়েন্ট থেকে বেড়ে ১২ দশমিক ৪২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। পরের অবস্থানে থাকা টেলিযোগাযোগ খাতের পিই রেশিও ১১ দশমিক ৪৭ পয়েন্টে থেকে বেড়ে ১২ দশমিক ৫৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।
বীমা খাতের পিই ১৩ দশমিক ৬২ পয়েন্ট থেকে বেড়ে ১৫ দশমিক ১৬ পয়েন্টে, প্রকৌশল খাতের ১৬ দশমিক ৫৫ পয়েন্ট থেকে কমে ১৩ দশমি ৮৬ পয়েন্টে, বস্ত্র খাতের ১৪ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট থেকে কমে ১৩ দশমিক ৭০ পয়েন্টে এবং সেবা ও আবাসন খাতের পিই ১৫ দশমিক ১৩ পয়েন্ট থেকে কমে ১৪ দশমিক ৮৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে।
২০- এর নিচে পিই থাকা অন্য খাতগুলোর মধ্যে খাদ্য খাতের ১৬ দশমিক ৩৮ পয়েন্ট থেকে কমে ১৬ দশমিক ১৭ পয়েন্টে, ওষুধ ও রসায়ন খাতের ১৮ দশমিক ১১ পয়েন্ট থেকে কমে ১৭ দশমিক ৩১ পয়েন্টে, সিরামিক খাতের ১৯ দশমিক ৯৫ পয়েন্ট থেকে কমে ১৮ দশমিক ৪৭ পয়েন্টে, তথ্য প্রযুক্তি খাতের ১৮ দশমিক ৯৪ পয়েন্ট থেকে কমে ১৭ দশমিক ৬৯ পয়েন্টে এবং আর্থিক খাতের ১৮ দশমিক শূন্য ৯ পয়েন্ট থেকে কমে ১৭ দশমিক ৯৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে।
বাকি খাতগুলোর পিইও রেশিও ২০ পয়েন্টের ওপরে। এর মধ্যে- ভ্রমণ ও অবকাশ খাতের ২০ দশমিক ৩০ পয়েন্ট থেকে কমে ২০ দশমিক ১৫ পয়েন্টে, চামড়া খাতের ২৫ দশমিক ২৯ পয়েন্ট থেকে কমে ২৪ দশমিক ২৬ পয়েন্টে, বিবিধ খাতের ২৪ দশমিক ৩৭ পয়েন্ট থেকে কমে ২৩ দশমিক ৫৬ পয়েন্টে, সিমেন্ট খাতের ২৬ দশমিক ৪২ পয়েন্ট থেকে বেড়ে ৩০ দশমিক ২২ পয়েন্টে, পেপার খাতের ৩০ দশমিক ১৫ পয়েন্ট থেকে কমে ২৯ দশমিক ৩১ পয়েন্টে এবং পাট খাতের ৪৮৮ দশমিক ১৫ পয়েন্ট থেকে কমে ৪২৪ দশমিক শূন্য ৭ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

নতুন কাগজ/আরকে