• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৭শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৪ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

দুপুর ২:১৩

এতগুলো টাকা নিয়ে গেল কিছুই করতে পারলামনা


ঝিনাইদহ সংবাদদাতা : ঈদের কেনাকাটা করতে টাকা পাঠিয়েছে সৌদি প্রবাসী মেয়ে রত্না। ব্যাংক থেকে সেই টাকা তুলে বাড়ি ফিরছিলেন মা রোকেয়া বেগম। পথে একটি প্রতারক চক্র অভিনব কায়দায় হাতিয়ে নিয়েছে তার সব টাকা।

গত সোমবার সকালে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ জনতা ব্যাংকের সামনে এ ঘটনা ঘটে।প্রতারণার শিকার রোকেয়া বেগম উপজেলার মালিয়াট ইউনিয়নের রাড়িপাড়ার জাহাঙ্গীর শেখের স্ত্রী।

তিনি জানান, মেয়ের পাঠানো ৩০ হাজার ৭৩০ টাকা ব্যাংক থেকে তুলে নিচে নামতেই তিনজন তার সামনে এসে দাঁড়ায়। তাদের একজন রোকেয়া বেগমের চোখের সামনে একটি পাথর ঘুরিয়ে বলে, ‘আসসালামু আলাইকুম খালাম্মা, আজ আপনার মনের আশা পূরণ হবে। আপনার ব্যাগে যে টাকা আছে সেগুলো আমার হাতে দিয়ে ৪০ কদম হাটলেই টাকা দ্বিগুণ হবে।’

রোকেয়া বেগম বলেন, আমি তার কথা বিশ্বাস করিনি। কিন্তু ওই সময় স্বাভাবিক ছিলাম না, কথা বলতে পারছিলাম না। ওই ব্যক্তি পাথরটা আমার সামনে ঘুরিয়ে যা বলেছে আমি তাই করেছি। চোখের সামনে দিয়ে এতগুলো টাকা নিয়ে গেল, আমি কিছুই করতে পারিনি।

রোকেয়া বেগমের ছেলের বউ রুমা খাতুন বলেন, আমার শাশুড়ি এখনও স্বাভাবিক হতে পারেননি। প্রায়ই কথা আটকে যাচ্ছে। টাকা তুলতে তাকে একা পাঠানো ঠিক হয়নি।

জনতা ব্যাংক কালীগঞ্জ শাখার ম্যানেজার এম.এ করিম জানান, ঘটনাটি ব্যাংক এরিয়ার বাইরে ঘটেছে। তাই বেশি কিছু করার নেই। তবুও প্রশাসনের সহযোগিতায় সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে প্রতারকদের চিহ্নিত করা হবে।