• ঢাকা
  • শুক্রবার, ৩রা জুলাই, ২০২০ ইং | ১৯শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১১ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী

সন্ধ্যা ৭:১৬

ইউএনও’র বেতনের টাকায় কোয়ারেন্টাইনে শ্রমিকদের মাঝে বস্ত্র বিতরন।


মোঃ হাইরাজ বরগুনা প্রতিনিধি:বরগুনার আমতলীর ইউএনও মনিরা পারভীনের উদ্যোগে আমড়াগাছিয়া খানকায়ে সাইক্লোণ সেল্টারের কোয়ারেন্টাইনে থাকা ৯০ জন নারী, পুরুষ শ্রমিকের মাঝে পরিধেয় বস্ত্র এবং শিশুদের মাঝে শিশু খাদ্য বিতরন করা হয়েছে। বুধবার রাতে ইউএনও তার বেতনের টাকায় ক্রয়কৃত এ পরিধেয় বস্ত্র বিতরন করেন।জানগেছে, মনিরা পারভীন গত বছর জুন মাসে আমতলীতে ইউএনও হিসেবে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকেই তিনি মানব কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে গত বুধবার (৮এপ্রিল) রাতে ৯০ জন ইটভাটার নারী ও পুরুষ শ্রমিক কেরানীগঞ্জ থেকে নদী পথে আমতলীর সোনাখালী আসেন। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে ওই এলাকার মানুষ। খবর পেয়ে আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন, আমতলী থানার ওসি শাহ আলম হাওলাদার ও এএসপি সৈয়দ রবিউল ইসলাম (আমতলী-তালতলী সার্কেল) তাদের উদ্ধার করে কুকুয়ার আমড়াগাছিয়া সাইক্লোণ সেল্টারের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখেন। ওই সময় থেকে প্রশাসনের উদ্যোগ তাদের খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে।

গত ৯ দিন ধরে তারা কোয়ারেন্টাইনে অবস্থান করছেন। ইউএনও মনিরা পারভীন বেতনের টাকা দিয়ে ওই কোয়ারেন্টাইনে থাকা ২৫ জন নারী ও ৬০ জন পুরুষের জন্য পরিধেয় বস্ত্র এবং ৫ শিশুর জন্য শিশু খাদ্য ক্রয় করেন। গতকাল বুধবার রাতে তিনি তাদের মাঝে পরিধেয় বস্ত্র ও শিশু খাদ্য বিতরন করেন। বিতরন কালে উপস্থিত ছিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আবু বকর সিদ্দিকী, ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ বোরহান উদ্দিন মাসুম তালুকদার ও মোঃ হারুন অর রশিদ হাওলাদার। কোয়ারেন্টাইনে থাকা নারী শ্রমিক খাদিজা ও রেহেনাসহ কয়েকজন বলেন, ইউএনও স্যারে মোগো শাড়ী কিন্না দিয়া গ্যাছে। মোগো গুড়াগাড়ারে খাওন দিয়া গ্যাছে। আল্লায় স্যারেরে ভালো রাহুক মোরা এই দোয়া হরি।আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন বলেন, বেতনের টাকা থেকে ক্রয় করে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ২৫ জন নারীকে শাড়ী ও ৬০ জন পুরুষকে লুঙ্গি দেয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, সরকারের বরাদ্দ থেকে শিশু খাদ্য দেয়া হয়।