• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২১শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং | ৭ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৫শে জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

রাত ৯:১৯

আসিফের জন্য মাঠে যুবলীগের সা: সম্পাদক নিখিল


নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আসিফ আহমেদের জন্য এবার মাঠে নেমেছেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মাইনুল হোসেন খান নিখিল।

আগামী ৩০ জানুয়ারির নির্বাচনে ঘুড়ি প্রতীকের এই প্রার্থীকে বিজয়ী করতে রোববার (১২ জানুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের মোহাম্মদি হাউজিং থেকে শুরু করে মোহাম্মদপুর বাসষ্ট্যান্ড পর্যন্ত ব্যাপক জনসংযোগ করেন তিনি।

এ সময় নিখিল ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আতিকুল ইসলামকে নৌকা ও ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী আসিফ আহমেদকে ঘুড়ি প্রতীকে ভোট দেওয়ার জন্য স্থানীয় ভোটারদের প্রতি আহবান জানান।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের প্রভাবশালী সাধারণ সম্পাদক ও কর্মীবান্ধব রাজনীতিক আলহাজ্ব মাইনুল হোসেন খান নিখিলের এই প্রচারণা ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ ভোটারদের উদ্দীপ্ত করেছে।

দারুণভাবে চাঈা হয়ে উঠেছেন দলটির নেতা-কর্মীরা। যুবলীগের নেতা-কর্মীরা শেখ হাসিনার মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী আসিফ আহমেদের গলায় বিজয়মাল্য পড়াতে আদাজল খেয়ে মাঠে নেমে পড়েছেন। তাদের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস আসিফের অনুকূলে ভোটের মাঠকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করছে।

নৌকা ও ঘুড়ি প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মাইনুল হোসেন খান নিখিল ভোটারদের উদ্দ্যেশ্যে বলেন, ‘নৌকা উন্নয়ন অগ্রযাত্রার প্রতীক। আধুনিক, উন্নত ও পরিবেশবান্ধব ঢাকা মহানগরী নিশ্চিত করতে মেয়র পদে আতিকুল ইসলামকে বিজয়ী করতে হবে।’

৩৩ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ ভোটারদের কাছে ঘুড়ি প্রতীকের প্রার্থী আসিফের জন্য ভোট প্রার্থনা করে তিনি বলেন, ‘প্রতিশ্রুতিশীল আসিফ মেধাবী তারুণ্যের প্রতীক। তাকে বিজয়ী করলে তিনি আপনাদের সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত পরিচ্ছন্ন ওয়ার্ড উপহার দিতে পারবেন।’

সুশিক্ষিত ও সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান আসিফ আহমেদ এবারই প্রথম ভোটযুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছেন। ডিএনসিসি’র ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে জয়ী হতে অনেক আগেই কোমরবেঁধে মাঠে নামেন। তার বিজয় নিশ্চিত করতে ইতোপূর্বে স্থানীয় থানা ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা একাট্টা হয়ে উঠেন।

তবে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মাইনুল হোসেন খান নিখিলের আসিফের পক্ষে সক্রিয় অবস্থান ভোটের মাঠে নতুন মেরুকরণ ঘটিয়েছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

স্থানীয়রা বলছেন, শনিবার (১১ জানুয়ারি) আসিফের পক্ষে স্মরণকালের সর্বোচ্চ শোডাউন ভোটের মাঠের সব হিসাব নিকাশ বদলে দিয়েছে। ওইদিন

স্থানীয় সব পথ যেন একাকার হয়ে মিশেছিল রাজধানীর কাদেরাবাদ মকবুল হোসেন ডিগ্রি কলেজ মাঠের সড়কে।

৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ঘুড়ি প্রতীকের প্রার্থী আসিফের নেতৃত্বাধীন মিছিল রূপ নিয়েছিল জনারণ্যে। প্রায় ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ সাড়া জাগানো এই শোডাউন রাজধানীর মোহাম্মদীয়ৈ হাউজিং ৬ নম্বর সড়ক দিয়ে চলতে চলতে স্থানীয় সোনালি মাঠের সামনে গিয়ে শেষ হয়। প্রায় আড়াই ঘন্টা সময়কালের এ মিছিলটি ছিল ভোটারদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে।