Natun Kagoj

ঢাকা, রবিবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ৩রা মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী

নরসিংদীতে ছয় আসামীর মৃত্যুদন্ডাদেশ

আপডেট: ২৯ নভে ২০১৬ | ১৫:২২

%e0%a6%a8%e0%a6%b0%e0%a6%b8%e0%a6%bf%e0%a6%82%e0%a6%a6%e0%a7%80

আসাদুজ্জামান রিপন,নরসিংদীঃ নরসিংদীতে বরফ কল শ্রমিক আইয়ুব হত্যা মামলার ৬ আসামীকে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে নরসিংদীর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মোহাম্মদ শাহিন উদ্দিন এ দন্ডাদেশ প্রদান করেন।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলো-১) ময়মনসিংহের সুজন ওরফে বাঘা সুজন ২) নরসিংদীর সোহাগ চন্দ্র দাস ৩) সাদ্দাম হোসেন ৪) সমীর চন্দ্র দাস ৫) বিমল ও ৬) চাঁদপুরের এরশাদ। দ-প্রাপ্ত সকল আসামী পলাতক রয়েছে।

মামলার বিবরণ ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, নরসিংদী শহরের বৌয়াকুড়স্থ মোসলেহ উদ্দিন সুপার মার্কেটের একটি বরফ কলে শ্রমিক হিসেবে কাজ করছিল ময়মনসিংহের সুজন ওরফে বাঘা সুজন। কাজে ফাঁকি দেয়ায় তার চাকরি চলে গেলে সুজনের কর্মস্থলে নতুন শ্রমিক হিসেবে নিয়োগ পায় শহরের বৌয়াকুড় মহল্লার মো: আব্দুল হেকিম সরকারের ছেলে মো: আইয়ুব। এ নিয়ে আইয়ুবের উপর ক্ষিপ্ত হয় চাকরিচ্যুত সুজন।

এরই জের ধরে সুজন ২০০৮ সালের ২৯ আগস্ট মোবাইলে ফোন করে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে বরফ কল শ্রমিক আইয়ুবকে নিয়ে যায়। পরে পরিবারের লোকজন অনেক খোঁজাখুজি করেও আইয়ুবের সন্ধান পাননি। তিনদিন পর ২০০৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর সদর উপজেলার ধামেরভাওলা এলাকায় মেঘনা নদীতে আইয়ুবের মাথাবিহীন গলিত মরদেহ পাওয়া যায়। মরদেহ শনাক্তের পর নিহত আইয়ুবের পিতা আ: হেকিম সরকার বাদী হয়ে নরসিংদী সদর থানায় সুজনকে প্রধান আসামী করে ৬ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। উক্ত মামলায় ৯ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আদালত আসামীদের অনুপস্থিতিতে ৬ আসামীকে মৃত্যুদ-ের আদেশ প্রদান করেন। এছাড়াও মৃত্যুদ-প্রাপ্তদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড দেন আদালত।

নরসিংদী জজ আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের কৌসুলী মো: অলি উল্লাহ এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 


নতুন কাগজ | রুমানা পারভিন

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

Loading Facebook Comments ...
 বিজ্ঞাপন