Natun Kagoj

ঢাকা, সোমবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ৪ঠা মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী

মেয়ে, তুই ভালো থাকিস

আপডেট: ১৬ জুলা ২০১৭ | ১৬:৩৭

 আবু সাঈদ আহমেদ

মেয়েটির বয়স সাকুল্যে আঠারো বছর হবে আর ছেলেটি পঁচিশের মধ্যে। ঢাকা শহরের ব্যস্ততম সড়কের মোড়ে রাত দশটায় মেয়েটি আর্তনাদ আর বিলাপ করে কাঁদছে। তার হাতে ধরা এইচএসসির গাইড বই, ছেলেটি মেয়েটিকে মানাতে চেষ্টা করছে। আর তাদের ঘিরে অপেক্ষমাণ কয়েকজন বাসযাত্রীর মৌজ নেয়ার ভিড়।

স্বভাবদোষে ভিড়ের মাঝে ঢুকে বুঝতে চেষ্টা করলাম ঘটনা কি! ছেলেটির কথায় যা বুঝলাম তা হলো- মেয়েটির মোবাইল টান দিয়ে নিয়ে গেছে, তাই এই আকুল কান্না। বেশ কিছুক্ষণ কান্না দেখে ও বিলাপ শুনে মনে মনে নিশ্চিত হলাম- ঘটনা আরও গভীর, শুধু ফোন সেটের জন্য এই আকুল আহাজারি নয়। এসব ক্ষেত্রে যা করি, তাই শুরু করলাম। প্রথমে ভিড় কমালাম, তারপর ছেলে আর মেয়েটিকে ধমক দিলাম, ‘এভাবে কান্না করলে সমস্যা আরও বাড়বে। মোবাইল সেট ফেরত আসবে না।’ এক ধমকেই কান্না কিছুটা কমলো। তারপর তাদের একটা চায়ের টং দোকানের সামনে এনে সরাসরি জিজ্ঞেস করলাম-

: মোবাইলে সমস্যা হবার মত ছবি আছে?

মেয়েটি ‘না’ বলে আবার কান্না শুরু করতেই ধমক লাগালাম ‘চুপ’। তারপর জিজ্ঞেস করলাম-

: ভিডিও আছে? দুজনের ভালোবাসাবাসির ভিডিও?

এবার ছেলেটি মাথা নিচু করে মৃদুস্বরে জবাব দিলো-

: হু।

ছেলেটিকে জিজ্ঞেস করলাম-

: তোমার মোবাইলেও আছে ঐ ভিডিও।

: হ্যা।

: এক্ষুণি মুছো।
ছেলেটি টিপে টিপে কি মুছলো সেই জানে। তাদের পরামর্শ দিলাম রাস্তায় কান্নাকাটি না করে প্রথমেই থানায় গিয়ে রিপোর্ট করতে, তারপর সিম বন্ধ করিয়ে নতুন সিম তুলতে। তাদের ঘণিষ্ট ভিডিওর কথা পুলিশকে বলতে বারণ করে থানায় যাবার রিকশা ঠিক করে দিলাম।

ইচ্ছে সত্বেও তাদের ফোন নাম্বার রাখিনি, কি দরকার ঝামেলা বাড়িয়ে। আমার কুদৃষ্টিও যে পড়বেনা মায়ামায়া চেহারার মেয়েটির প্রতি, আর তা চিরতার্থ করতে তার দূর্বলতার এই সুযোগ কাজে লাগাবোনা- তার নিশ্চয়তা কি!

মেয়ে, তোর যেনো কোনো সমস্যা না হয়। ছেলে, তুই থাকিস মেয়েটির পাশাপাশি। দুজনেই এমন ভুল আর না করিস- এই দোয়া করি। তোদের জন্য একটা বাসযোগ্য পৃথিবী নির্মাণ করতে পারিনি, সুস্থভাবে বেড়ে ওঠা নিশ্চিত করতে পারিনি, পরিবারগুলো এখনো শিক্ষালয় হয়ে উঠতে পারেনি, একাডেমিক শিক্ষাকেই একমাত্র শিক্ষা মনে করার বৃত্ত হতে অভিভাবকরা বের হতে পারিনি- এ দায় শুধুই আমদের। এ লজ্জা কোথায় রাখি!

 

পুনশ্চ:

১.

প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য যৌনসম্পর্ক একটি স্বাভাবিক বিষয়। তবে বিবাহবর্হিভূত যৌনসম্পর্ক আমাদের সামাজিক প্রেক্ষাপটে গ্রহনীয় নয়।সমাজবদ্ধ জীব হিসেবেই আমাদের সামাজিক রীতি আর কানুনগুলোর প্রতি শ্রদ্ধা দেখাতে হয় আস্থা রাখতে হয়। তাই এমন সম্পর্কে জড়ানো এবং তা ধারণ করা কোনোক্রমেই উচিত নয় যাতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যহত হয়, ব্ল্যাকমেইলের স্বীকার হতে হয়। এক্ষেত্রে পরিবারের ভূমিকা সর্বাধিক, তারপর সমাজ ও রাষ্ট্রের। পারিবারিক দায়িত্বপালনের পরিবর্তে সমাজ ও রাষ্ট্রকে দোষারোপ করা অর্থহীন।

২. ঘটনাটি ০৬জুলাই২০১৭ তারিখের।

৩. ছেলে-মেয়ে দুজনের নিরাপত্তা ও সম্মানের জন্যই ঘটনাস্থলের নাম এবং ভিড়ের ছবি প্রকাশ করলাম না।

 

 

 

 

আবু সাঈদ আহমেদ, সাংবাদিক, লেখক ও এক্টিভিস্ট।

 


নতুন কাগজ | শাওন চৌধুরী

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

Loading Facebook Comments ...
 বিজ্ঞাপন