Natun Kagoj

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২৮শে জিলহজ্জ, ১৪৩৮ হিজরী

বেতন দিয়ে শিক্ষকদের মর্যাদা মূল্যায়ন করা যায় না: শিক্ষামন্ত্রী

আপডেট: ০৬ অক্টো ২০১৬ | ১৫:১২

34497_41-100x100কাগজ প্রতিবেদক: শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, দুনিয়ার সকল কাজকে পেশা বলা যেতে পারে, ঠিক তেমনি শিক্ষকতাকে পেশা বলা যায়। তবে আমি বলবো সেটি পেশা না, পেশার চেয়ে বড় কিছু। জগতে এর চেয়ে মহৎ কাজ আর কিছুই হতে পারে না। তাই আমরা শিক্ষকদের কাছে সব সময় ঋণী।

তিনি বলেন, বেতন দিয়ে শিক্ষকদের মর্যাদা পরিমাপ করা যায় না, বেশি বা কম বেতন। বড় কথা হলো শিক্ষকরা সবচেয়ে বেশি সম্মানজনক অবস্থানে আছে। তারাই আমাদের জাতির নির্মাতা, জাতি গড়ে তুলবে।

গতকাল বুধবার দুপুরে বিশ্ব শিক্ষক দিবস উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। বিশ্ব শিক্ষক দিবস ২০১৬ জাতীয় উদযাপন কমিটি এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে শিক্ষক পেশায় স্ব স্ব অবস্থান থেকে অবদানের স্বরূপ বিশ্ব শিক্ষক দিবস ২০১৬ জাতীয় উদযাপন কমিটির পক্ষ থেকে এবছর ওই অনুষ্ঠানে চারজন শিক্ষককে সম্মাননা দেয়া হয়। সম্মাননা শিক্ষকরা হলেন-বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপক রেহমান সোবহান, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. মনজুর আহমেদ, শিক্ষাবিদ নুরুল আলম এবং প্রয়াত শিক্ষাবিদ জয়নাল আবেদীন চৌধুরী।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষার মূল লক্ষ্য হচ্ছে নতুন প্রজন্মকে গড়ে তোলা, যাতে তারা বাংলাদেশের অগ্রগতিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। তাদেরকে আধুনিক বাংলাদেশের নির্মাতা হিসেবে গড়ে তুলতে শিক্ষকদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। এ জন্য নতুন প্রজন্মের চাই বিশ্বমানের শিক্ষা-জ্ঞান-প্রযুক্তি ও দক্ষতা। তবে শুধু এসব দিলে হবে না, তাদেরকে ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। যাতে করে তারা সৎ ও নিষ্ঠাবান মানুষ হিসেবে গড়ে উঠে।

তিনি বলেন, নতুন প্রজন্মকে আধুনিক ও মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার মূল শক্তি হচ্ছে শিক্ষক সমাজ। তাই শিক্ষকদের সরকার সেভাবেই সমর্থন এবং সহযোগিতা দিয়ে যায় যাতে করে তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে পারে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, আজকের এদিনটি বিশ্বের সকল শিক্ষকদের জন্য একটি সম্মানের দিন। এরিস্টটল বলেছিলেন, ‘একজন সন্তানের জন্মদাতা মাতা এবং পিতা। কিন্তু তাদের চেয়ে বেশি সম্মানিত হচ্ছে ওই শিশুকে যে শিক্ষা দিয়েছে সেই শিক্ষক।’

তাই আজকে ২০১৬ সালে এসে আমরা শিক্ষকদের মূল্যায়ন এবং মর্যাদা উন্নয়নের কথা বলছি, সেটা নতুন কথা নয়। আমাদের এই উপ-মহাদেশে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে যে সম্পর্ক, সেটি সম্মান এবং মর্যাদার সম্পর্ক, স্নেহের সম্পর্ক।

সে সম্পর্কের কথা আমাদের এই অঞ্চলে নতুন করে বলা লাগে না। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ও গণসাক্ষরতা অভিযানের নির্বাহী পরিচালক রাশেদা কে চৌধুরী বলেন, আজকের সকালের খবর ‘একটি ছাত্র সংগঠনের নেতা বলেছেন খাদিজাকে কোপানো দুর্বৃত্তটা কোনো ছাত্র নয়, ছাত্রদের একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করেন।

তার এ কথায় লজ্জায় আমার মাথা হেট হয়ে যায়। আজকের শিক্ষক দিবসে এটা কি প্রাপ্য ছিল? শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনাদের প্রতিজ্ঞা ছিল যে, আপনার শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন, ইভটিজিংয়ের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন।

কৃতজ্ঞতা জানাই আপনাদের। কিন্তু আপনাদের আজ এখানে শপথ করতেই হবে যে, যে কোনো শিক্ষক সে যদি কতিপয় মুষ্টিমেয় অশিক্ষক আপনাদের ওপরে কলঙ্ক লেপন করে আপনারা তাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিবেন। কতিপয় শিক্ষকের জন্য সব শিক্ষকের কলঙ্ক হতে পারে না।

জাতীয় শিক্ষক-কর্মচারী জোটের প্রধান সমন্বয়ক অধ্যাপক কাজী ফারুক আহমেদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক রেহমান সোবহান, ইউনেস্কো ঢাকাস্থ প্রধান বেট্রিয়াস খালদুন, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. মনজুর আহমেদ, শিক্ষাবিদ নুরুল আলম প্রমুখ।


নতুন কাগজ | জহিরুল ইসলাম

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

Loading Facebook Comments ...
 বিজ্ঞাপন