বিদেশ যেতে অনুমতি মিললো সালমানের

0
3

বিনোদন ডেস্ক: সালমান খান ১৯৯৮ সালে কৃষ্ণসার হরিণ শিকারের দায়ে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। যোধপুর দায়রা জজ আদালত তাঁকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন। এরপর যোধপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে ৪৮ ঘণ্টা বন্দী থাকার পর জামিনে মুক্তি পান এই বলিউড তারকা। জামিন পেলেও ভারতের বাইরে যাওয়ার অনুমতি ছিল না। এবার যোধপুর আদালতে বিদেশে যাওয়ার অনুমতি চেয়ে একটি আবেদন করেন সালমান খান। আজ মঙ্গলবার সকালে তাঁকে বিদেশ যাওয়ার অনুমতি দিয়েছেন যোধপুরের দায়রা জজ আদালত।

দায়রা জজ আদালতের বিচারক চন্দ্র কুমার সোংগারা সালমান খানকে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা আর নেপাল ভ্রমণের অনুমতি দিয়েছেন। আগামী ২৫ মে থেকে ১০ জুলাই পর্যন্ত এসব দেশে ভ্রমণ করতে পারবেন সালমান। তবে সালমান কেন এসব দেশ ভ্রমণ করবেন, তা আবেদনে উল্লেখ করা হয়নি। উল্লেখ না করলেও জানা গেছে, ছবির শুটিংয়ের জন্য দেশের বাইরে যাওয়ার অনুমতি চেয়েছেন ভাইজান। সোমবার থেকে আলী আব্বাস জাফরের পরিচালনায় তিনি মুম্বাইয়ে ‘ভারত’ ছবির শুটিং শুরু করেছেন। এদিকে এই ছবির মধ্য দিয়ে দুই বছর পর বলিউডে ফিরছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। ‘ভারত’ ছবির কাজ শেষ হওয়ার পর সালমান ‘কিক টু’ ছবির কাজ শুরু করবেন। এরপর তাঁকে নেমে পড়তে হবে ‘দাবাং থ্রি’ ছবির শুটিংয়ে। সব মিলিয়ে এ বছর দম ফেলার ফুরসত নেই সালমানের। কারাগার থেকে মুক্তি পেলেও বছরজুড়ে তাঁকে কাজে আটকে থাকতে হবে।

৭ এপ্রিল সালমান খানের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন যোধপুর দায়রা জজ আদালতের বিচারক রবীন্দ্র কুমার যোশি। ৫০ হাজার রুপির ব্যক্তিগত বন্ডে তিনি এই বলিউড তারকাকে জামিন দেন। ওই দিন সন্ধ্যায় সালমান কারাগার থেকে বের হওয়ার সময় বাইরে তাঁর জন্য অপেক্ষা করছিলেন দেহরক্ষী শেরা আর তাঁর দুই বোন আলভিরা ও অর্পিতা। সেখান থেকে সোজা যোধপুর বিমানবন্দরে যান তাঁরা। নিজস্ব চার্টার বিমানে মুম্বাইয়ে ফেরেন। তখন আইনজীবীদের কাছ থেকে সংবাদমাধ্যম জানতে পারে, আদালতের নির্দেশ ছাড়া দেশের বাইরে যেতে পারবেন না সালমান। ৭ মে আবার তাঁকে যোধপুর আদালতে হাজিরা দিতে হবে।

আগেই জানানো হয়েছে, সালমান খানকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভারতের রাজস্থান রাজ্যের যোধপুরের একটি আদালত। পাশাপাশি তাঁকে ১০ হাজার রুপি জরিমানা করা হয়েছে। তাঁকে বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইনের ৫১ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। ২০ বছর আগের কৃষ্ণসার হরিণ শিকার মামলার রায় হয় ৫ এপ্রিল সকালে। এ মামলায় অন্য তিন অভিযুক্ত সাইফ আলী খান, টাবু ও সোনালী বেন্দ্রেকে আদালত বেকসুর খালাস দিয়েছেন।