Natun Kagoj

ঢাকা, সোমবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ৪ঠা মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী

বাংলাদেশ এবং থাইল্যান্ডের মধ্যে ফ্রেম-ওয়ার্ক চুক্তি স্বাক্ষরিত

আপডেট: ০৬ অক্টো ২০১৬ | ১০:০৭

palak20161006094216

কাগজ প্রতিবেদক: ই-গভার্ননেন্স, সাইবার নিরাপত্তা, আইটি শিল্পের উন্নয়নে এক সাথে কাজ করতে থাইল্যান্ডের মিনিস্ট্রি অব ডিজিটাল ইকোনমি অ্যান্ড সোসাইটি এবং বাংলাদেশের আইসিটি ডিভিশনের মধ্যে এক ফ্রেম-ওয়ার্ক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

ব্যাংককে অবস্থানরত তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এর সঙ্গে থাইল্যান্ডের উপ-প্রধানমন্ত্রী এসিএম প্রাজিন জানটং এর দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের পর বুধবার এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

বৈঠকে পারস্পরিক স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিষয় এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন ত্বরান্নিত করতে থাইল্যান্ডের সহযোগিতা কামনা করেন প্রতিমন্ত্রী পলক। জবাবে থাই উপ-প্রধানমন্ত্রী আন্তরিক সহযোগিতার পাশাপাশি ডিজিটাল বাংলাদেশ উদ্যোগের প্রসংশা করেন।

থাই উপ-প্রধানমন্ত্রীর সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের পর প্রতিমন্ত্রী পলক শ্রীলংকার সায়েন্স, টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্স বিষয়ক মন্ত্রী সুশীল প্রেমাজয়ান্ত , ভিয়েতনামের আইসিটি মন্ত্রী রুডলফো সালালিমা এবং ইউএন এসকাপ’র এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারির সাথেও পৃথক পৃথক দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হন।

প্রেমাজায়ান্তার সাথে প্রতিমন্ত্রী পলকের বৈঠকে শ্রীলঙ্কার একাউন্টিং বিপিও’র সাফল্যের অভিজ্ঞতাকে বাংলাদেশের একাউন্টিং বিপিও’র সমৃদ্ধি সাধনে সমন্বয় করতে কিভাবে একত্রে কাজ করা যায় সে বিষয়ে ফলপ্রসু আলোচনা হয়।

ফিলিপাইনের আইসিটি মন্ত্রী রুডলফো সালালিমা-এর সাথে পলকের দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে ফিলিপাইনের ভয়েস বিপিও এবং ফ্রিল্যান্সিং-এ এগিয়ে যাওয়ার সাফল্য বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট খাতে সম্মিলন ঘটাতে দু’দেশ একসাথে কাজ করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন।

ইউএন-এসকাপের আন্ডার সেক্রেটারি (উক্ত আয়োজনে ইউএন-এর নিয়মানুযায়ী তিনি এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি হিসেবে অভিহিত হবেন) এর সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে আন্ডার সেক্রেটারি বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়ন ও অর্থনৈতিক অগ্রগতি সাধনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ভূয়সী প্রসংশা করেন। এশিয়া-প্যাসিফিক ইনফরমেশন সুপার হাইওয়ের পরবর্তী বৈঠক বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে বলে উক্ত বৈঠকেই সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত মঙ্গলবার থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে ইউএন-এসকাপ ও ইন্টারনেট সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত ‘ইন্টারনেট অব অপারটুনিটি ইন দ্যা এশিয়া প্যাসিফিক’ শীর্ষক এক উচ্চ পর্যায়ের ফোরামে বাংলাদেশকে আগামী এক বছরের জন্য এশিয়া-প্যাসিফিক ইনফরমেশন সুপার হাইওয়ে ওয়ার্কিং গ্রুপের চেয়ারম্যন নির্বাচিত করা হয়।

উক্ত দ্বিপাক্ষিক বৈঠকসমূহে প্রতিমন্ত্রীর সাথে উপস্থিত ছিলেন ইউএন এসকাপে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি এবং ব্যাংককে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সাঈদা মুনা তাসনিম, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদফতরের মহাপরিচালক বনমালী ভৌমিক, প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সচিব আব্দুল বারি প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত ৩ তারিখে প্রতিমন্ত্রী পলক এশিয়া-প্যাসিফিক রিজিওনাল ইন্টারনেট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ডায়ালগ এবং ইউএন-এসকাপ কমিটি অন আইসিটি, সায়েন্স, টেকনোলজি এন্ড ইনোভেশন-এর প্রথম বৈঠকে যোগ দিতে বাংলাদেশ ত্যাগ করেন।


নতুন কাগজ | রুমানা পারভিন

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

Loading Facebook Comments ...
 বিজ্ঞাপন