Natun Kagoj

ঢাকা, শুক্রবার, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২৯শে জিলহজ্জ, ১৪৩৮ হিজরী

ফরিদপুরে মাঠ পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক

আপডেট: ০৬ ফেব্রু ২০১৭ | ১১:২৭

Faridpur p2কে. এম. রুবেল, ফরিদপুর: ফরিদপুর জেলার মাটি ও আবহাওয়া পেঁয়াজ বীজ চাষের উপযোগী হওয়ায় দিন দিন বাড়ছে এ অঞ্চলে পেয়াজ বীজের আবাদ। জেলার অম্বিকাপুর ইউনিয়নের ক্ষেতজুড়ে এখন পেঁয়াজ বীজের সাদা ফুলে ফুলে ভরে উঠেছে।

কৃষক বক্তার খান জানায়, পেঁয়াজের বীজ যেমনি লাভ জনক, তেমনি ঝুকিপূর্ণ ফসল। গত বছর ১৪ একর জমীতে পেঁয়াজ বীজ আবাদ করে ৭০মন বীজ পেয়েছি। প্রতিমন বীজ ৬৫হাজার টাকা দরে বিক্রি করে পেয়েছি ৪৫লাখ ৫০হাজার টাকা। চলতি বছর ২৫ একর জমিতে পেঁয়াজ বীজ আবাদ করেছি। ১ একর জমিতে সবমিলিয়ে খরচ হবে ১লাখ ২৫হাজার টাকা। ২৫একর জমিতে খরচ হবে ৩১লাখ ২৫হাজার টাকা। আসা করছি আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে ২৫ একর জমি থেকে ১৭৫ মন বীজ পাব এবং এক কোটি টাকার উপরে বিক্রি করতে পারব।

তিনি আরও জানান, আমার উৎপানিত বীজ স্থানীয় চাহিদা পুরণ করে থাকে। এছাড়াও কুষ্টিয়া, পাবনা, মানিকগঞ্জ, কালুখালী, পাংশা বাজবাড়ী, ময়মনসিংহ, সেরপুর, রাজশাহী, ঝিনেইদাহসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের পেঁয়াজ চাষীদের চাহিদা পুরণ করে থাকে।

বক্তার হোসেনের বীজের মাঠে কাজ করে এলাকার অনেক বেকার যুবক ও কৃষকের কর্মসংস্থানের সুযোগ হয়েছে। প্রতিদিন বক্তার খানের ক্ষেতে ২৫/৩০জন লেবার কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। জমি তৈরী থেকে শুরু করে বীজ ঘরে তোলা পর্যন্ত একটানা ৬মাস ২৫/৩০জন কৃষক তাদের জীবিকা নির্বাহ করছেন বক্তার খানের পেঁয়াজ বীজ মাঠে কাজ করে।

ফরিদপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ জি. এম. আব্দুর রউফ বলেন, চলতি বছর ফরিদপুর জেলা প্রায় ২হাজার ৫শ হেক্টোর জমিতে পেঁয়াজ বীজের আবাদ হয়েছে। আর অম্বিকাপুরের কৃষক বক্তার খান একাই ২৫একর জমিতে বীজের আবাদ করেছেন। তার উৎপাদিত বীজ উৎকৃষ্টমানের। স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যাচ্ছে তার বীজ। দেশের উৎপাদিত বীজের সিংহ ভাগ উৎপাদন হয় ফরিদপুর জেলায়। আর ফরিদপুর জেলার উৎপাদিত বীজের সিংহভাগ উৎপাদন করে থাকেন বক্তার খান।

এদিকে বক্তার খানের পেঁয়াজ বীজের মাঠ পরিদর্শন করেছেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক বেগম উম্মে সালমা তানজিয়া। এসময় তার সাথে ছিলেন ফরিদপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ জি. এম. আব্দুর রউফ, ফরিদপুর সদর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. আবুল বাসার মিয়া। জেলা প্রশাসক বক্তার খানের পেঁয়াজ মাঠ দেখে অবিভুত হন। ফরিদপুরের পেঁয়াজ বীজকে জেলার ব্র্যান্ডিং হিসাবে ঘোষণা করতে সরকারের কাছে সুপারিশ করবেন বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

এছাড়াও তিনি চাষীদের সহজ শর্তে ৪% হার সুদে ঋণ দেওয়ার জন্য ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে অনুরোধ করবেন বলেও জানান।


নতুন কাগজ | সাজেদা হক

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

Loading Facebook Comments ...
 বিজ্ঞাপন