Natun Kagoj

ঢাকা, শুক্রবার, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২৯শে জিলহজ্জ, ১৪৩৮ হিজরী

প্রধান অভিনেত্রী না হলে আমি নেই- প্রিয়াঙ্কা চোপড়া

আপডেট: ৩১ জুলা ২০১৬ | ০৬:৩৩

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া

বিনোদন ডেস্কঃ বলিউডের সুপারস্টার প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ভাষ্য, ‘এমন কিছু করবো না যেটা আমাকে ছকে ফেলে অথবা ভারতীয় পরিচয়ের বাক্সে আটকে রাখে। ভারতে আমি প্রধান অভিনেত্রী, তাই যে কাজই করি না কেনো প্রধান অভিনেত্রী না হলে আমি নেই। এ নিয়ে কোনো আপস করবো না।’

গত বছর আমেরিকান স্পাই থ্রিলার টিভি সিরিজ ‘কোয়ান্টিকো’র প্রধান চরিত্রে অভিনয় করে বিপুলসংখ্যক মার্কিনিদের মন জয় করেছেন প্রাক্তন এই বিশ্বসুন্দরী। এতে প্রিয়াঙ্কা অভিনয় করেছেন অ্যালেক্স প্যারিশ চরিত্রে। সন্ত্রাসী হামলা করার সন্দেভাজন হিসেবে দেখা হয় তাকে। সন্ত্রাসবাদ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অপছন্দ হলেও সন্ত্রাসবাদ আমাদের বাস্তবতার বিপুল অংশ জুড়ে আছে। অন্যদের বিশ্বাস স্থাপন করতে আতঙ্ক ছড়ানোর সবচেয়ে কাপুরুষোচিত কাজ এটা।’

‘কোয়ান্টিকো’র দ্বিতীয় মৌসুমের প্রচারে ফ্রান্সের প্যারিসে গিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপিকে প্রিয়াঙ্কা জানান, আরও বড় ক্যারিয়ার গড়তে বদ্ধপরিকর তিনি। এ ছাড়া অনেক সন্তানের মা হওয়ার ইচ্ছা আছে তার। তিনি বললেন, ‘এখনও যুতসই ছেলে খুঁজছি। বিয়ের জন্য মনের মতো কাউকে পাওয়া জরুরি।’

আমেরিকার মতো ব্রিটেনেও কাজ করার প্রস্তাব পেয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা। কিন্তু বরাবরই গৎবাঁধা ভারতীয় চরিত্র হওয়ায় ফিরিয়ে দেন তিনি। ‘কোয়ান্টিকো’র আন্তর্জাতিক সাফল্য চিত্রটা বদলে দিয়েছে। এর ফলে দক্ষিণ এশীয় প্রথম কোনো তারকা হিসেবে তাকে নিয়ে এতো তোলপাড় হচ্ছে পশ্চিমে।

‘কোয়ান্টিকো’তে জটিল চরিত্রে অভিনয়ের সামর্থ্য দেখানোর সুবাদে প্রিয়াঙ্কার দুয়ারে আরও কয়েকটি বড় বড় কাজ আসছে। এর মধ্যে ‘বেওয়াচ’-এ নেতিবাচক চরিত্রে দেখা যাবে তাকে। তিনি ঠাট্টা করে বলেন, ‘এ ছবিতে ভালো ছেলেদের জীবন দুর্বিষহ করে তুলবো!’

২০১২ সালে ‘ইন মাই সিটি’ গানের মাধ্যমে আর্ন্তজাতিক অঙ্গনে পা রাখেন প্রিয়াঙ্কা। এর পরের বছর প্রকাশিত হয় পিটবুলের সঙ্গে তার দ্বিতীয় গান ‘এক্সোটিক’। আরও কিছু গান করার ইচ্ছে আছে প্রিয়াঙ্কার। কিন্তু সময়ের অভাবে হয়ে উঠছে না। তিনি বলেন, ‘‘আমার হাতে এখন সত্যিই গান-বাজনা করার সময় নেই। ‘হ্যাপি’ গানের মার্কিন গায়ক ফ্যারেল উইলিয়ামসও আমাকে গাইতে বলেছেন। কিন্তু আপাতত তা পারছি না।’’

দুটি ভিন্ন মহাদেশে একসঙ্গে দুটি ক্যারিয়ার ধরে রাখা এবং তা সঠিকভাবে চালানো অনেক কঠিন বলে মনে করছেন প্রিয়াঙ্কা। মার্কিন টিভি সিরিজ ‘কোয়ান্টিকো’র প্রথম মৌসুমের কাজের পাশাপাশি হিন্দি ছবি ‘বাজিরাও মাস্তানি’ (২০১৫) ও হলিউডের ছবি ‘বেওয়াচ’-এর (২০১৭) কাজ করেছেন তিনি।


নতুন কাগজ | শারমিন আজাদ

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

Loading Facebook Comments ...
 বিজ্ঞাপন