Natun Kagoj

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২৮শে জিলহজ্জ, ১৪৩৮ হিজরী

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স’র আবেদন এখন অনলাইনে

আপডেট: ১৫ জানু ২০১৭ | ১৯:৪১

পুলিশকাগজ প্রতিবেদক :  পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের জন্য এখন থেকে ঘরে বসেই কম্পিউটার ও মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অনলাইনেই আবেদন করতে পারবেন বিদেশগামী বা বিদেশে বসবাসকারীরা। এর ফলে আবেদনকারীকে সশরীরে থানায় আসার প্রয়োজন হবে না। আবেদনের জন্য pcc.police.gov.bd এড্রেসে গিয়ে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও সরকারি ফি পরিশোধের চালান স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে।

রাজারবাগ পুলিশ টেলিকম মিলনায়তনে  আজ রবিবার ‘অনলাইন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স’ শীর্ষক এ সেবার উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। বাংলাদেশ পুলিশ ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

আবেদনের পর অনলাইনে বা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কাজের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানা যাবে। ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার স্বাক্ষর, পুলিশ সুপার বা উপ-কমিশনারের প্রতিস্বাক্ষর এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সত্যায়ন হওয়ার আবেদনের সময় উল্লেখিত স্থান থেকে সশরীরে এটি সংগ্রহ করতে পারবেন। অথবা কুরিয়ারের ফি পরিশোধ সাপেক্ষে ঘরে বসেই সার্টিফিকেট নিতে পারবেন। ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেটটিতে একটি কিউ-আর কোড প্রিন্ট করা থাকে। যেকোনো স্মার্ট ফোন থেকে কিউ-আর কোডটি স্ক্যান করলে ইস্যু হওয়া সার্টিফিকেটের একটি অনলাইন লিংক পাওয়া যাবে। যেকোনো ইন্টারনেট ব্রাউজার থেকে লিংকটি ভিজিট করলে সার্টিফিকেটের একটি অবিকল ডিজিটাল কপি দেখা যাবে। ফলে এই সার্টিফিকেট জাল হওয়ার কোনো আশঙ্কা থাকবে না।

এদিন অানুষ্ঠানিকভাবে এই সেবাটির উদ্বোধন করা হলেও গত ২০ নভেম্বর থেকে কুমিল্লা জেলায় পরীক্ষামূলকভাবে এই সেবা চালু করা হয়। পর্যন্ত পর্যন্ত নতুন সিস্টেমে প্রায় ১৪ হাজার আবেদন পাওয়া গেছে। যার মধ্যে সাড়ে পাঁচ হাজার সার্টিফিকেট ইস্যু করা হয়েছে।

উদ্বোধনের সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ২০০৮ সালে নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন। তখন অনেকেই হাসি-বিদ্রুপ করলেও প্রধানমন্ত্রীর কথার স্বার্থতার এখন পদে পদে বোঝা যচ্ছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে নতুন এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেটের অনলাইন সেবা সম্পর্কে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজি) এ কে এম শহীদুল হক বলেন, সংশ্লিষ্ট থানা থেকে ক্লিয়ারেন্সের জন্য তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে যে উপ-পরিদর্শকে নিয়োগ দেওয়া হবে, তাকে কাজ শেষ করতে যেন নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দেওয়া হয়। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঁচদিন সময় লাগে, সেখানে হেল্প ডেস্ক বাড়ানো যায় কিনা তারা বিবেচনা করবে। কিন্তু পুলিশের পক্ষ থেকে কোথাও যেন বিলম্ব না হয়।

অনুষ্ঠানের উপস্থিত ছিলেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, এটুআই প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার প্রমুখ।


নতুন কাগজ | অনিল সেন

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

Loading Facebook Comments ...
 বিজ্ঞাপন