Natun Kagoj

ঢাকা, সোমবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ৪ঠা মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী

ঘুমাতে হবে বালিশ ছাড়া

আপডেট: ০১ আগ ২০১৭ | ১৬:৪৫

লাইফস্টাইল ডেস্ক: নরম তুলতুলে বালিশ আমাদের ঘুমকে আরো মজাদার করে তোলে নি:সন্দেহে, কিন্তু ইদানীং জানা যাচ্ছে বালিশ ছাড়া ঘুমালেই বরং নানা উপকার পাওয়া যায়।

বালিশ ছাড়া ঘুমালে কি কি উপকার পাওয়া যায় তা নীচে দেওয়া হলো।

শিরদাঁড়া চাঙ্গা থাকে:
বালিশ ছাড়া শুলে শিরদাঁড়া স্বাভাবিক অবস্থায় থাকে, ফলে চোট আঘাত বা অন্য কোনও সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা কমে। প্রসঙ্গত, খেয়াল করে দেখবেন বালিশে মাথা দিয়ে শুলে শিরদাঁড়ার একটা অংশ একেবারেই স্বাভাবিক অবস্থায় থাকতে পারে না। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ঘরে বা পিঠে যন্ত্রণা হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়।

কাঁধের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে:
দক্ষিণ এশিয়ার মোট জনসংখ্যার সিংহভাগই কাঁধ, ঘাড় অথবা পিঠের কোনও রোগে ভুগছেন এবং রোগীদের বেশিরভাগেরই বয়স ২৫-৪০ এর মধ্যে।  এক্ষেত্রে দায়ি হল বালিশ। তাই চিকিৎসকেরা কম বয়স থাকতেই বালিশ ছাড়া ঘুমনোর পরামর্শ দেন।  এর ফলে শোয়ার সময় ঘাড় এবং তৎসংলগ্ন অঞ্চলে রক্ত সরবরাহ ঠিক মতো হওয়ার সুযোগ পায়। ফলে কম বয়সেই স্পন্ডেলাইটিসের মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমে।

মুখমণ্ডলের সৌন্দর্য বাড়ে:
বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে বলিশে মাথা দিয়ে ঘুমনোর সময় আমাদের মধ্যে অনেকেই উবু হয়ে, বলিশে মুখ গুঁজে শুতে ভালবাসেন। এমনভাবে দীর্ঘ সময় কেউ যদি ঘুমায়, তাহলে ত্বকে বলিরেখা প্রকাশ পাওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে। সেই সঙ্গে কম বয়সেই ত্বকের সৌন্দর্য হ্রাস পাওয়ার আশঙ্কাও থাকে।

ঘুমে ব্যাঘাত ঘটে:
বেশ কিছু কেস স্টাডি করে দেখা গেছে বালিশ ছাড়া  যতটা ভাল ঘুম হয়, বালিশ ব্যবহার করলে অতটা ভাল ঘুম হয় না। কী কারণে এমনটা হয়ে থাকে, তা যদিও এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট করে জানা যায়নি, তবে গবেষণা চলছে।

তবে একদিনেই বালিশ ছাড়া ঘুমানোর অভ্যাস করা সম্ভব নয়। এটি করতে হবে ধীরে ধীরে।

এক্ষেত্রে প্রথম এক সপ্তাহ বালিশের পরিবর্তে একটা মোটা টাওয়াল ভাঁজ করে মাথায় দিন। যত দিন যেতে থাকবে, তত টাওয়ালের হাইট কমাতে থাকুন। দ্বিতীয় সপ্তাহে টাওয়ালটা একেবারে পাতলা করে দিন। এই সময় খেয়াল রাখবেন, শোওয়ার সময় মাথাটা এমন পজিশনে রাখবেন, যাতে থুতনিটা নিচের দিকে থাকে, উপরের দিকে নয়। আরেকটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। যখন টাওয়ালের হাইট একেবারে কমিয়ে দেবেন, তখন মাঝে মাঝে ঘাড় এবং পিঠের কিছু ব্যায়াম করা শুরু করতে পারেন। দেখবেন উপকার পাবেন।


নতুন কাগজ | উৎপল দাশগুপ্ত

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

Loading Facebook Comments ...
 বিজ্ঞাপন