Natun Kagoj

ঢাকা, শুক্রবার, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২৯শে জিলহজ্জ, ১৪৩৮ হিজরী

খুলে দেয়া হলো সিটিসেল

আপডেট: ০৬ নভে ২০১৬ | ১৮:৫০

%e0%a6%b8%e0%a6%bf%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%b8%e0%a7%87%e0%a6%b2

কাগজ প্রতিবেদক: টেলিকম প্রতিষ্ঠান সিটিসেলের স্পেকট্রাম আজ সন্ধ্যায় খুলে দেয়া হয়েছে।

রবিবার সন্ধ্যায় বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত ৩ নভেম্বর শর্তসাপেক্ষে বেসরকারি সিটিসেলের তরঙ্গ খুলে দেওয়ার নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে সিটিসেল কর্তৃপক্ষকে ১৯ নভেম্বরের মধ্যে ১০০ কোটি টাকা পরিশোধের নির্দেশ দেওয়া হয়। অন্যথায় বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) তরঙ্গ বরাদ্দ বাতিল করতে পারবে।

কিন্তু রবিবারের মধ্যেও স্পেকট্রাম খুলে না দেয়ায় আজ সকালে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে আপিল বেঞ্চ এই বিষয়ে দুপুরের মধ্যে বিটিআরসিকে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়।

বিটিআরসি দাবি করেছে, সিটিসেলের কাছে সরকারের পাওনা রয়েছে ৪৭৭ কোটি ৫১ লাখ টাকা। যদিও এই পাওনা নিয়ে পরস্পর বিরোধী দাবি রয়েছে। বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ালে আপিল বিভাগ ৬ সপ্তাহের মধ্যে পাওনা টাকার তিন ভাগের দুই ভাগ এবং অবশিষ্ট টাকা দুই মাসের মধ্যে জমা দেয়ার জন্য সিটিসেল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছিল।

সিটিসেল তাদের হিসাবমত বকেয়া টাকার মধ্যে ১৩০ কোটি বিটিআরসিকে এবং ১৪ কোটি টাকা এনবিআরের খাতে জমা করে। কিন্তু বিটিআরসি দাবি করে প্রথম কিস্তির টাকার অঙ্ক ৩১৮ কোটি টাকা। টাকার অঙ্ক নিয়ে দুই পক্ষের এই মতবিরোধের মধ্যে বিটিআরসি সিটিসেলের তরঙ্গ বরাদ্দ স্থগিত করে দেয়। এ পরিস্থিতিতে তরঙ্গ বরাদ্দ ফিরে পেতে সিটিসেল আপিল বিভাগে ওই আবেদন করে।

বিটিআরসি ও সিটিসেলের দাবিকৃত টাকার অঙ্ক নিয়ে যে বিরোধ দেখা দিয়েছে তা নিস্পত্তির জন্য বুয়েটের সাবেক অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরীকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি করে দেয়া হয়েছে। ওই কমিটি দাবিকৃত টাকা নিয়ে যে বিরোধ দেখা দিয়েছে তা নিস্পত্তি করবে।


নতুন কাগজ | জহির আল মামুন

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

Loading Facebook Comments ...
 বিজ্ঞাপন